১৮, নভেম্বর, ২০১৯, সোমবার | | ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

আইন ভঙ্গ করে ক্ষমতা দেখাবেন না: মেয়র আতিক

সিএনআই ডেস্ক: ট্রাফিক আইন ভঙ্গ করার পরে অনেকে ক্ষমতা প্রয়োগ করার চেষ্টা করেন। আইন ভঙ্গকারীরা নিজের বা পরিচিত ক্ষমতাবানদের পরিচয় দিয়ে পার পাওয়ার চেষ্টা করেন। এমন কর্মকাণ্ড থেকে জনগণকে বিরত থেকে আইন মেনে চলতে আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম। সোমবার রাজধানীর আসাদ এভিনিউয়ের গ্রিন হেরাল্ড স্কুলের সামনে স্থাপিত পুশ বাটন ট্রাফিক সিগনাল পরিদর্শন এবং 'সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮' সম্পর্কে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। মেয়র বলেন, 'সারা বিশ্বের সব জায়গায় কঠোরভাবে আইন মানা হয়। সেখানে আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রয়েছে। এর মূল কারণ আইন অমান্য করলে কঠিন শাস্তি এবং বড় অঙ্কের জরিমানা গুণতে হয়। এজন্য অনেকে ক্ষমতা দেখানোর চেষ্টা করে। আইন মেনে চলুন, ক্ষমতা দেখাবেন না।' আতিকুল বলেন, 'আইন রাজস্ব আদায়ের জন্য নয়। মানুষ যেন আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয় এবং আইন মেনে চলে এজন্য শাস্তি এবং জরিমানা করা হয়েছে।' এসময় সিগন্যাল পয়েন্টে দাঁড়িয়ে পথচারীদের সচেতন করতে চার ধরনের লিফলেট বিতরণ করেন ডিএনসিসি মেয়র। এরমধ্যে পথচারীদের জন্য এক ধরনের লিফলেট, চালকের জন্য বাংলা ও ইংরেজিতে লেখা দুই ধরনের, পথচারীদের জন্য এক ধরনের এবং ট্রাফিক আইন ও দণ্ডসমূহ সম্পর্কে অবগত করতে আরেক ধরনের লিফলেট বিতরণ করা হয়। মেয়র বলেন, 'আমাদের ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় কেউ আইন ভঙ্গ করে না। সেখানে আইন ভঙ্গ করলে বড় ধরনের জরিমানা ও শাস্তি পেতে হয়। কিন্তু ওই একই চালক ক্যান্টনমেন্টের বাইরে এলে আইন অমান্য করে। ক্যান্টনমেন্টে এক ধরনের আচরণ এবং বাইরে আরেক ধরনের আচরণ হতে পারে না।' শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার গুরুত্ব উল্লেখ করে মেয়র আতিকুল বলেন, 'ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ব্যাপকভাবে সচেতনতা বাড়াতে হবে। শিক্ষার্থী এবং তার অভিভাবকদের সচেতন করতে হবে তা না হলে ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট হবে না।' গ্রিন হেরাল্ড স্কুলের সামনে বসানো ডিজিটাল পুশ বাটন ব্যবস্থাপনার জন্য ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে দুই সিফটে ছয়জন, ট্রাফিক পুলিশের পক্ষ থেকে চারজন এবং স্কুলের পক্ষ থেকে দুই শিফটে চারজন কাজ করবে। যারা পথচারীদের নিরাপদে পারাপার হতে সহযোগিতা করবেন। মেয়র জানান, এই পুশ বাটন ট্রাফিক সিগনালটি পরীক্ষামূলকভাবে বসানো হয়েছে৷ আরও ২১টি সেট সিগন্যাল ডিএনসিসির কাছে রয়েছে। যা পর্যায়ক্রমে স্থাপন করা হবে। এরপরের পুশ বাটন সিগন্যালটি বসবে মহাখালীতে। নভেম্বর ও ডিসেম্বরে পুশ বাটনের ব্যবহার নিশ্চিত করতে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। কিন্তু জানুয়ারির ১ তারিখ থেকে পথচারী বা চালকরা সিগন্যাল না মানলে জরিমানা করা হবে জানিয়েছেন মেয়র আতিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ইলিয়াস কাঞ্চন। তিনি বলেন, 'ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা উন্নত করতে হলে আমাদের এই বিষয়ে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা নিতে হবে। একসময় আমাদের দেশে সিনেমার জন্য প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ছিল না। যখন এর উন্নতি হচ্ছে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে এই বিষয়ে কোর্স চালু আছে। আমাদের দেশে এখন ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার জন্য প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা চালু করতে।' তিনি আরও বলেন, 'রাস্তায় শুধু ট্রাফিক থাকলে হবে না। ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার জন্য ট্রাফিক ইঞ্জিনিয়ার থাকতে হবে। তাহলে সুস্থ ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা হবে।'