১৮, জুন, ২০১৯, মঙ্গলবার | | ১৪ শাওয়াল ১৪৪০

আইইউবি’তে শুরু হলো “স্টুডেন্ট টু স্টার্ট-আপ” অধ্যায়-১

আপডেট: মার্চ ১৬, ২০১৯

আইইউবি’তে শুরু হলো “স্টুডেন্ট টু স্টার্ট-আপ” অধ্যায়-১

শনিবার (১৬ই মার্চ) ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ (আইইউবি) তে শুরু হলো “স্টুডেন্ট টু স্টার্ট-আপ” অধ্যায়-১। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইউবি’র ইংরেজী বিভাগের ফ্যাকাল্টি ও সোসাইটি ফর লীডারশীপ স্কীলস্ ডেভেলপম্যাণ্ট (এসএলএসডি)’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও প্রধান নির্বাহী অধ্যাপক মঈনুদ্দিন চৌধুরী।

তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ এখন জনতাত্ত্বিক লভ্যাংশ বা ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ড অর্জনের মধ্য দিয়ে সময় পার করছে। দেশের ৪০% এর অধিক জনসংখ্যাই তরুণ। এই সরকার যুব ও তরুণ বান্ধব। তাই তরুণদের এগিয়ে আসতে হবে এই সুযোগ ব্যবহার করতে। বিশ্বের বুকে এই লাল সবুজের পতাকাকে সমুজ্জ্বল রাখতে হলে চাকুরী প্রার্থী না হয়ে নতুন নতুন উদ্ভাবনী দিয়ে অন্যদের জন্য চাকুরীর বাজার তৈরী করতে হবে। জানা গেছে, আগামী ১৯ শে মার্চ আইউবি’র অংশগ্রহনকারীদের চুড়ান্ত নির্বাচনী পর্ব অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলাদেশ সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের ইনোভেশন ডিজাইন এণ্ড এণ্টারপ্রেনারশীপ একাডেমী (আইডিয়া) এর পরামর্শক মোঃ দেওয়ান আদনান, সহকারী প্রোগ্রামার জেনিথ বিশ্বাস, ইয়াং বাংলার “স্টুডেন্ট টু স্টার্ট-আপ” এর সমন্বায়ক আশিকুর রহমান রুপক এবং সেণ্টার ফর রিসার্চ এণ্ড ইনফরম্যাশন (সিআরআই) এর সহকারী সমন্বায়ক (গবেষনা) আসাদ উজ্জামান ভূইঁয়া “স্টুডেন্ট টু স্টার্ট-আপ” অধ্যায়-১ এর নানাবিধ সুফল ও কৌশলগত দিক তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ইয়াং বাংলার আইউবি’র ক্যামপাস এম্বাসেডর চৌধুরী শাহরীন সিরাজ। এছাড়া এই আয়োজনে সহযোগীতা করেন ইয়াং বাংলার আইউবি’র আরেক ক্যামপাস এম্বাসেডর ফাইক আসহাব।

স্টার্ট-আপ-বাংলাদেশের অর্থায়নে এবং ইনোভেশন ডিজাইন এণ্ড এন্টারপ্রেনারশিপ একাডেমী (আইডিয়া), ইয়াং বাংলা, বাংলাদেশ সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ ও সেণ্টার ফর রিসার্চ এণ্ড ইনফরম্যাশন (সিআরআই) এর তত্বাবধানে ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রায় ৩০টি দলকে নিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ভবিষ্যৎ সৃজনশীল উদ্যেগী তৈরী করার এই প্রতিযোগীতামুলক অনুষ্ঠানটি।