২২, জুলাই, ২০১৯, সোমবার | | ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪০

‘আমি ব্যক্তিগত ভাবে চাই এবার ইংল্যান্ড শিরোপা জিতুক’ : পিয়া 

আপডেট: জুলাই ১১, ২০১৯

‘আমি ব্যক্তিগত ভাবে চাই এবার ইংল্যান্ড শিরোপা জিতুক’ : পিয়া 

রুহুল আমিন ভূঁইয়া

জান্নাতুল ফেরদৌস পিয়া একজন বাংলাদেশী মডেল এবং অভিনেত্রী। তিনি ২০০৭ সালে মিস বাংলাদেশ খেতাব অর্জন করেন। চলমান বিশ্বকাপে উপস্থাপক হিসেবে কাজ করছেন পিয়া। গাজী টেলিভিশনের পর্দায় তাকে নিয়মিত দেখা যাচ্ছে। ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের বিভিন্ন মাঠ থেকে বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে কথা বলে তুলে আনছেন ম্যাচের বিশ্লেষণ। বাংলাদেশ থেকে বিশ্বকাপ ক্রিকেট কাভার করতে এবারই প্রথম কোনও নারী উপস্থাপক হিসেবে পিয়ার সূচনা। তবে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পিয়ার পদচারণা পুরনো ঘটনা। বিখ্যাত সাময়িকী ভোগ-এর ভারতীয় সংস্করণে প্রচ্ছদকন্যা হয়েছিলেন বাংলাদেশের এই মডেল।

ব্যস্ততার ফাঁকে বিশ্বকাপে কাজের রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতা ও স্মরণীয় ঘটনা জানতে চাইলে মুঠোফোনে ইংল্যান্ডের ওপাশ থেকে পিয়া বলেন, বাংলাদেশের প্রথম নারী হিসেবে বিদেশের মাটিতে বিশ্বকাপের মতো আসরে কাজ করতে পেরে গর্বিত। একজন নারী হিসেবে এটা আরও বেশি। বিশ্ব ক্রিকেট অনেকখানি ডমিনেট করে ছেলেদের ক্রিকেট। এখানে একজন মেয়ে হিসেবে উপস্থাপনা করা অসাধারণ অনুভূতি। আর এখানকার প্রতিটি ঘটনাই স্মরণীয়। আলাদা করে বলতে চাই না। খেলার বিরতিতে মাঠের মধ্যে দাঁড়িয়ে কথা বলছি। প্রেস কনফারেন্স এরিয়াতে যাচ্ছি। সবই দেখতে পাচ্ছি খুব কাছ থেকে। প্রত্যেকটা ম্যাচ কাভার করছি। বিভিন্ন শহর ঘুরছি। নিজের যতটুকু জানা আর দেখে দেখে শেখা, খুবই ভাল একটা অভিজ্ঞতা- যোগ করেন পিয়া।

আলাপকালে পিয়া জানান, খেলা রিলেটেড উপস্থাপনা করতে বেশ ইনজয় করি। বেশিদিন হয়নি উপস্থাপনা করছি। তারপরও খেলা কেন্দ্রিক উপস্থাপনা করতে ভালই লাগছে। ক্রীড়াকেন্দ্রিক উপস্থাপনা নিয়ে পিয়ার কোনও আলাদা পরিকল্পনা নেই। সব সময় উপস্থাপনায় নিজের সর্বোচ্চ দেওয়ার চেষ্টা করেন। বিশ্বকাপ আসর শেষ করে পাঁচ দিনের দুটি কোর্স করবেন। কোর্স দুটি শেষ করে পিয়া দেশে ফিরবেন আগামী ২২ জুলাই। সামনে দুটি ম্যাচ আছে সেমিফাইনাল ও ফাইনাল।

ম্যাচ দুটি নিয়ে আপনার ব্যক্তিগত মতামত জানতে চাই- ইন্ডিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে ইন্ডিয়াকে এগিয়ে রাখতে হবে। ইংল্যান্ড অস্ট্রেলিয়া টিম নিয়ে এক্সসাইটেড তারা ফাটাফাটি দুটি দল। আমি ব্যক্তিগত ভাবে চাই এবার ইংল্যান্ড শিরোপা জিতুক। সামনেই আসছে কোরবানির ঈদ। ভাল কাজ পেলে ঈদের বিশেষ অনুষ্ঠানমালায় উপস্থাপনায় দেখা যাবে। পিয়া হেরে যাবার মানুষ নন। আত্মবিশ্বাসে পরিপূর্ণ মনুষ্য। ক্রিকেট নিয়ে যখন উপস্থাপনা শুরু করেন। প্রথমে ছোট খাট ভ্রান্তির মধ্যে সে পর্ব অতিবাহিত হয়। অবশেষে অদম্য পিয়া তার সার্মথ্য প্রমাণ করে চলেছেন এবারের বিশ্বকাপের আসরে। নিয়তি ক্রিকেটের রথি মহারথির সাক্ষাতকার গ্রহণের মাধ্যমে দেশের মানুষের ভালবাসা কুড়িছেন, পাশাপাশি নিজেকে নিয়েছেন অনন্য উচ্চতায়।