১৭, জুন, ২০১৯, সোমবার | | ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

নুসরাত হত্যা মামলার চার্জশিট গ্রহণ

আপডেট: জুন ১০, ২০১৯

নুসরাত হত্যা মামলার চার্জশিট গ্রহণ

ফেনীর মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত হত্যার মামলায় ১৬ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ আমলে নিয়েছেন আদালত। আটক ২১ আসামির মধ্যে ৫ জনকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। সোমবার (১০ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুন উর রশিদের আদালতে শুনানি শুরু হয়। দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত শুনানি শেষে ১৬ আসামিকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট আমলে নেয় আদালত। বাকি পাঁচ জনকে মামলা থেকে অব্যাহিত দেয়া হয়েছে। মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে ২০ জুন।

যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গ্রহণ করা হয়েছে তারা হলেন, সোনাগাজী সিনিয়র মাদ্রাসার বহিষ্কৃত অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলা, সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি রুহুল আমিন (৫৫), সোনাগাজী পৌরসভার কাউন্সিলর ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মাকসুদ আলম (৫০), নুর উদ্দিন (২০), শাহাদাত হোসেন শামীম (২০), সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের (২১), জাবেদ হোসেন (১৯), হাফেজ আবদুল কাদের (২৫), আফছার উদ্দিন (৩৩), কামরুন নাহার মণি (১৯), উম্মে সুলতানা পপি (১৯), আবদুর রহিম শরীফ (২০), ইফতেখার উদ্দিন রানা (২২), ইমরান হোসেন মামুন (২২), মোহাম্মদ শমীম (২০) ও মহিউদ্দিন শাকিল (২০)।

মামলার চার্জশিট ও প্রায় ৮০০ পৃষ্ঠার সামগ্রিক নথিটি গত ২৮ মে ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচার বিভাগীয় হাকিম জাকির হোসাইনের আদালতে দাখিল করেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) কর্মকর্তারা।

মামলার বাদীপক্ষে রয়েছেন অ্যাডভোকেট শাহজাহান সাজু। আসামিপক্ষে রয়েছেন অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিন নান্নু, তাজুল ইসলামসহ কয়েকজন আইনজীবী।

সোনাগাজীর ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাতকে হত্যার উদ্দেশে গত ৬ এপ্রিল গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয়া হয়। পরে ১০ এপ্রিল চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যায় সে। এ ঘটনায় নুসরাতের ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান বাদী হয়ে সোনাগাজী থানায় মামলা করেন।

১২ এপ্রিল মামলাটি তদন্তের জন্য পিবিআইতে পাঠানো হয়। পুলিশ ও পিবিআই এ ঘটনায় ২১ জনকে গ্রেফতার করে। এদের মধ্যে ১২ জন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। গত ২৮ মে ১৬ জনের ফাঁসির আবেদন করে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পিবিআই।