২২, জুলাই, ২০১৯, সোমবার | | ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪০

প্রস্তুতি শেষে না করে দিয়েছেন পপ তারকা নিকি মিনাজ সৌদি আরবকে

আপডেট: জুলাই ১০, ২০১৯

প্রস্তুতি শেষে না করে দিয়েছেন পপ তারকা নিকি মিনাজ সৌদি আরবকে

আগামী ১৮ জুলাই দেশটির কিং আবদুল্লাহ স্পোর্টস স্টেডিয়ামে আন্তর্জাতিক কনসার্টের আয়োজন করার যাবতীয় প্রস্তুতি সেড়ে ফেলেছিল সৌদি আরব। প্রধান গায়িকা হিসেবে রাখা হয়েছিল পপ তারকা নিকি মিনাজের নাম। কনসার্টের আয়োজকদের পক্ষ থেকে এমন ঘোষণার পরপরই আলোচনা-সমালোচনার কেন্দ্রে চলে আসেন মিনাজ। কনসার্টটিতে মদ নিষিদ্ধ করা হয়েছিল সঙ্গে নারীদের আবায়া (এক ধরনের ঢিলেঢালা লম্বা পোশাক) পরিধান করে কনসার্টে আসার নির্দেশনার কথাও উল্লেখ করা হয়েছে বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে।

তবে কনসার্টে নিকি মিনাজের অংশ নেয়াকে নিয়ে দেশটির নারীদের একটা অংশ চটেছেন। তাদের কথায়, নিকি মিনাজের গানগুলো যৌনতা সংক্রান্ত এবং অশ্লীল শারীরিক অঙ্গভঙ্গিপূর্ণ। আর সেখানে উপস্থিত সৌদি নারীদের আবায়া পরতে বলা হয়েছে। এমন অবস্থার মধ্যে এক সপ্তাহের মাথায় কনসার্ট বাতিলের ঘোষণা দেন নিকি মিনাজ। তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, ‘ভেবে চিন্তে জেদ্দায় বিশ্ব ফেস্টে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

‘যেখানে আমি শুধু সৌদি আরবে আমার ফ্যানদের জন্য যেতে চেয়েছিলাম। কিন্তু এই ইস্যুটিকে নিয়ে ভালভাবে জেনে আমার মনে হয়েছে নারীদের অধিকার, এলজিবিটি সম্প্রদায় ও বাক স্বাধীনতাকে গুরুত্ব দেয়া আমার জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’ যোগ করেন নিকি। সৌদি আরবে সমকামিতা নিষিদ্ধ।

তবে সৌদি আরবে হঠাৎ করেই কেন এই আন্তর্জাতিক কনসার্ট সঙ্গে নিকি মিনাজের ডাক এ নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। কেননা গেল বছরের অক্টোবরে দেশটিতে সাংবাদিক জামাল খাগোসির হত্যাকাণ্ডে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েছিল দেশটি। সঙ্গে মানবাধিকার সংস্থাও বিষয়টা নিয়ে সবসময় তৎপর ছিল।

শুধু তাই নয় গেল মার্চ মাসেও ১০ নারী অধিকার কর্মীকে আদালতে নেয়ার বিষয়টি নিয়েও ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছিল সৌদি আরব। তার পরপরই আন্তর্জাতিক কনসার্টের আয়োজন এসেছে জুলাইয়ে।

এদিকে কনসার্ট বাতিল করতে নিকি মিনাজকে উদ্দেশ্য করে একটা খোলা চিঠি লিখেছে যুক্তরাজ্য ভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা। সৌদি আরবের ‘শাসনের অর্থ প্রত্যাখান’ এবং তাকে তার প্রভাবটা নারীদের অধিকারে ব্যবহার করার জন্য আহ্বান করা হয়েছিল।

তার পরেই নিকি মিনাজের কনসার্ট বাতিলের ঘোষণা আসলো। সূত্র: বিবিসি