২২, জুলাই, ২০১৯, সোমবার | | ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪০

বুড়িগঙ্গা তীরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে ম্যাজিস্ট্রেটসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের উপর হামলা

আপডেট: জুলাই ১১, ২০১৯

বুড়িগঙ্গা তীরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে ম্যাজিস্ট্রেটসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের উপর হামলা

বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে শ্মশানঘাট এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান চলার সময় হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ পাঁচ জন আহত হয়েছেন। এই ঘটনায় পুলিশ তিন জনকে আটক করেছে। গত জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এই অভিযানে প্রথমবারের মতো এমন ঘটনা ঘটল। বৃহস্পতিবার সকালে ধারাবাহিকভাবে উচ্ছেদ ও নদীর জায়গা উদ্ধারে নামে অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ বিআইডব্লিউটিএ।

এতদিন নদীর তীরে অবৈধ দখলদারদের স্থাপনা ভেঙে গুড়িয়ে দেওয়া হলেও দখলদাররা কিছু করার সাহস পায়নি। অভিযানে স্থানীয় সংসদ সদস্য হাজী মো. সেলিমের একাধিক বহুতল ভবন, দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজলের শ্বশুর বাড়িও বাদ যায়নি। কিন্তু অভিযানকারী দলের ওপর হামলার সাহস কেউ করেনি।

কিন্তু চতুর্থ পর্বের দ্বিতীয় পর্যায়ের অভিযানের তৃতীয় দিনে এসে হামলার ঘটনা ঘটল। বিআইডব্লিউটিএর যুগ্ম পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দিন বলেন , অভিযান চলাকালে বেলা ১১টা নাগাদ শ্মশানঘাটের ইজারাদার ইব্রাহিম আহমেদ রিপন উচ্ছেদে বাধা দেন৷

‘এক পর্যায়ে ইব্রাহিম তার দলবল নিয়ে অভিযান পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের উপর হামলা চালায়। এতে ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমানসহ পাঁচ জনের গায়ে আঘাত লাগে। তবে তা গুরুতর নয়।’

অভিযান চলাকালে উপস্থিত পুলিশ সদস্যরা হামলাকারীদেরকে ঠেকাতে ব্যর্থ হলে অতিরিক্ত পুলিশ ডাকা হয়। পরে তারা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আটক করা হয় ইজারাদার ইব্রাহিমের ছোট ভাই বাপ্পীসহ তিন জনকে। তবে পালিয়ে যান ইজারাদার। তাকে আটক করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। হামলার পর এক ঘণ্টা উচ্ছেদ বন্ধ থাকলেও অভিযান আবার শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিআইডব্লিউটিএর যুগ্ম পরিচালক।