২৩, জুলাই, ২০১৯, মঙ্গলবার | | ২০ জ্বিলকদ ১৪৪০

আজ স্টার্ক সাকিবের লড়াই কেমন জমবে?

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের সফলতা বলতে সাকুল্যে এক জয়। সেটাও এসেছে সেই ২০০৫ সালে। জাতীয় দলে এখন ব্রাত্য মোহাম্মদ আশরাফুল নান্দনিক সেঞ্চুরির সুবাদে। কার্ডিফে নেটওয়েস্ট সিরিজে অস্ট্রেলিয়াকে ৫ উইকেটে হারিয়েছিল হাবিবুল বাসারের দল। এরপর থেকে অস্ট্রেলিয়াকে আর কখনই ওয়ানডে ক্রিকেটে হারাতে পারেনি টাইগাররা। হেরে গেছে একের পর এক ম্যাচ। এবার সেই আক্ষেপ ঘোচানর সময় এসে গেছে। নিজেদের ইতিহাসের সেরা দল নিয়ে এবারের বিশ্বকাপ খেলছে টাইগাররা। ইতোমধ্যেই হারিয়ে দিয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো শক্তিশালী দলগুলোকে। টাইগার অধিনায়ক মাশরাফিও বলেছেন, নিজেদের দিনে যেকোনো দলকে হারিয়ে দেয়ার সামর্থ্য আছে তার দলের। সুতরাং, খুব সহজেই যে আজ অসিরা ছাড় পাচ্ছে না তা আর বলার অপেক্ষা রাখছে না।

মিচেল স্টার্ক : এখনো পর্যন্ত দুরন্ত বোলিং করে যাচ্ছেন মিচেল স্টার্ক। বিশ্বকাপে ২০ বা ততোধিক উইকেট নেয়া বোলারদের মধ্যে সেরা গড় ও স্ট্রাইকরেট এই বাঁহাতি পেসারের। বিশ্বকাপ আসরে এখন পর্যন্ত স্টার্কের গড় ১৩.৫১ এবং স্ট্রাইক রেট ১৮.৮। প্রতি আড়াই ওভারে ১ উইকেট নেয়ার কৃতিত্বের সঙ্গে ইকোনমি রেট মাত্র ৪.৩০। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের সামনে আজ তাই বড় বাধা হয়ে দেখা দিতে পারেন এই পেসার। স্টার্কের সবচেয়ে বড় অস্ত্র তার গতি। সেই সঙ্গে বল আউট সুইং ও ইয়র্কার ছোঁড়ার দারুণ ক্ষমতা রয়েছে তার। ফর্মে থাকা বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের সামনে তাই অপেক্ষা করছে 'কঠিন স্টার্ক' পরীক্ষা। সাকিব আল হাসান : বিশ্বমঞ্চে এসে সাকিব ঠিকই প্রমাণ করে ছাড়লেন কেন তাকে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার বলা হয়। এখন পর্যন্ত, টুর্নামেন্টের সেরা পারফরমার তিনি। বলে হাতে ৪ ম্যাচে ৫ উইকেট তার সফলতার প্রমাণ না দিলেও, ব্যাট হাতে ৪ ম্যাচে ২ ফিফটি আর ২ সেঞ্চুরিতে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ ৩৮৪ রানের মালিক তিনি। এই ফর্ম ধরে রাখলে, সাকিব যে অস্ট্রেলিয়াকেও নাকানি-চুবানি খাইয়ে ছাড়বে তা তা আর বলার অপেক্ষা রাখছে না। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে খোদ অস্ট্রেলিয়ার সহকারী কোচ রিকি পন্টিং বলেছিলেন, এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বিপজ্জনক তারকা হবেন সাকিব।