২৩, জুলাই, ২০১৯, মঙ্গলবার | | ২০ জ্বিলকদ ১৪৪০

প্রেমপত্র দিতে গিয়ে ছেলেধরা সন্দেহে গণধোলাই

রোববার সন্ধ্যায় মৌলভীবাজারের হাজীপুর ইউনিয়নের খাতাইরপার গ্রামে বন্ধুর প্রেমিকার বাড়িতে মোবাইল ও প্রেমপত্র দিতে গিয়ে ছেলেধরা সন্দেহে গণধোলায়ের স্বীকার বসন্ত শব্দকর (২৪)। এ সময় স্থানীয়রা তাকে ছেলেধরা সন্দেহে আটক করে গণধোলাই দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পুলিশ জানায়, কমলগঞ্জ উপজেলার পৌরশহরের নরেন্দ্রপুর এলাকার হবিব মিয়ার সঙ্গে কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের খাতাইরপার গ্রামের এক তরুণীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ওই তরুণীর সঙ্গে যোগাযোগ রাখার জন্য একটি মোবাইল পৌঁছানোয় হবিব তার বন্ধু একই এলাকার নরেন্দ্র শব্দকরের ছেলে বসন্ত শব্দকরের সহযোগিতা চান। বসন্ত বন্ধুর প্রেমে সহায়তা করার জন্য রোববার সন্ধ্যার দিকে হবিবের দেয়া মোবাইল ও একটি চিঠি নিয়ে ওই তরুণীর বাড়িতে যান। এ সময় স্থানীয় লোকজন অপরিচিত যুবককে এলাকায় দেখে ছেলেধরা সন্দেহে বসন্তকে গণধোলাই দিতে থাকে। পরে স্থানীয় পীরেরবাজার এলাকার কয়েকজন ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী উত্তেজিত জনতার হাত থেকে বসন্তকে রক্ষা করে একটি দোকানে নিয়ে রাখে এবং কুলাউড়া থানা পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ বসন্তকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে। এসব তথ্য নিশ্চিত করে কুলাউড়া থানার এসআই কানাই লাল চক্রবর্তী জানান, বসন্ত জিজ্ঞাসাবদে জানায় ওই এলাকায় তার বন্ধু হাবিবের প্রেমিকাকে মোবাইল ও চিঠি দিতে এসেছিল। এ সময় তাকে ছেলেধরা সন্দেহে স্থানীয়রা আটকে রাখে। পরে খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করা হয়। সিএনআই/এসআই