২২, জুলাই, ২০১৯, সোমবার | | ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪০

ফেনীর রেলওয়ে ওভারপাসে গর্তে র্ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন

কাজী নজরুল ইসলাম, ফেনী : ঢাকা- চট্রগ্রাম মহাসড়কের ফেনীর ফতেহপুরের রেলক্রসিং এর উপর রেলওয়ে ওভারপাসটি গত বছর উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনের পর এ বছরে কয়েক দফা বর্ষার পানিতে ওভারপাসের সড়কে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। ওভারপাসের অংশ ছাড়াও সড়কের কয়েক জায়গায় দেবে গিয়ে বিশাল গর্ত তৈরি হয়েছে। এসব গর্তে চাকা আটকে পড়ে প্রতিদিন ঘটছে দূর্ঘটনা, নষ্ট হচ্ছে যানবাহনের যন্ত্রপাতি এবং বিকল হচ্ছে যানবাহন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে ফতেহপুরের এই রেলওয়ে ওভারপাসের সড়কে ছোট-বড় গর্ত তৈরি হয়েছে।এছাড়া সড়কের অনেক অংশ দেবে গেছে। ওভারপাসের পশ্চিম দিকের সড়ক বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, ওই অংশে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী যানবাহন গর্তে পরে ইতিমধ্যে ছোট্ট ছোট্ট কয়েকটি দূর্ঘটনা ঘটেছে এবং সড়কের পাসের রেলিংয়ের কিছু অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এলাকাবাসী জানায়, যেকোনো সময় তৈরি হওয়া এইসব গর্তে গাড়ির চাকা পড়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যদি ওভারপাসের রেলিং ভেঙে নিচে পরে যায়, তাহলে যান মালের বড় ধরনের ক্ষতি হবে। পাশাপাশি বন্ধ হয়ে যাবে মহাসড়কের যান চলাচল। এদিকে ফেনীর পরিবহণ মালিকরা বলেন ঈদকে সামনে রেখে এ পথে মানুষের চলাচল নির্বিঘ্নে করতে এই ভাঙ্গা অংশ গুলো দ্রুত মেরামত না করা হলে ভাঙ্গা অংশে এসে যানবাহনের গতি কমিয়ে দেওয়ার কারনে এ পথের যাত্রী ও পরিবহণ চালকদের চরম ভোগান্তীতে পরতে হবে , সেই সাথে সৃষ্টি হবে যানজট । এদিকে ফেনীর সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী জানান, ওভারপাসটির নির্মাণ কাজ করেন “বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২০ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্যাটালিয়ন”। নির্মানের পরবর্তী রক্ষনা-বেক্ষনের দায়িত্বটাও এখন পর্যন্ত তাদের । তিনি বলেন, আমি এই ওভারপাসের দায়িত্বে থাকা সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটালিয়ন ২০ এর মেজরকে বিষয়টি অবগত করেছি এবং তিনি জানিয়েছেন সরেজমিনে গিয়ে সড়কের ক্ষতিগ্রস্ত অংশ গুলো দেখে দ্রুত মেরামতের ব্যবস্থা করবেন। গত ২০১২ইং সালে শুরু হয়ে,২০১৮ইং সালের ১৫ মে এই ওভারপাসের উপর দিয়ে যান চলাচল শুরু হয় । ওভারপাসটির মোট ৮৬ দশমিক ৭৯ মিটার দৈর্ঘ্য ও প্রায় ২১ দশমিক ৬ মিটার প্রস্থের প্রকল্পের মধ্যে ৭’শ ৫৫ মিটার এ্যাপ্রোচ সড়ক রয়েছে। উল্লেখ যে,প্রায় ৬৮ কোটি ৬১ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই ওভারপাসটি গত বছরের ১৪ আগস্ট গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।