২রা এপ্রিল, ২০২০ ইং, বৃহস্পতিবার
৮ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

সোমবার গভীর রাতেই দেশে ফিরছেন টাইগাররা!

প্রকাশিত: ৪:২৪ অপরাহ্ণ , জানুয়ারি ২৭, ২০২০

সোমবার গভীর রাতেই দেশে ফিরছেন টাইগাররা!

স্পোর্টস ডেস্কঃ ভ্রমণ ক্লান্তি কমাতে বিশেষ বিমান ভাড়া করে মাহমুদউল্লাহদের পাকিস্তানে পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের মেঘদূতে করে ২২ জানুয়ারি রাতে লাহোরে অবতরণ করেন তারা। তাতেই ২৮ জানুয়ারি ফেরার কথা ছিল তাদের। তবে প্রতিকূল পরিবেশের কারণে সোমবার গভীর রাতে ফিরছেন টাইগাররা। এদিন সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ খেলেই দেশের উদ্দেশে রওনা দেয়ার কথা তাদের। পাকিস্তানের কাছে প্রথম দুই ম্যাচে পরাজিত হয়ে ইতিমধ্যে টি-টোয়েন্টি সিরিজ হেরেছে বাংলাদেশ।স্বভাবতই হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়ানোর মিশন নিয়ে শেষ ম্যাচ খেলতে নামবেন মাহমুদউল্লাহরা। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশ সময় বিকাল ৩টায়। তবে বৃষ্টির কারণে খেলা শুরু হতে বিলম্ব হচ্ছে।

পাকিস্তানে একরকম চার দেয়ালের মধ্যে বন্দি থাকতে হচ্ছে মাহমুদউল্লাহদের। হোটেল টু মাঠে সীমাবদ্ধ থাকছে তাদের চলাফেরা। ফলে খেলা শেষ করেই দেশে ফিরতে উদগ্রীব হয়ে উঠেছেন তারা। বন্দিজীবন থেকে মুক্তি চাচ্ছেন বাংলাদেশ খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফরা।

শনিবার ফোনে বিসিবি পরিচালক আকরাম খান বলেন, হোটেলে বসে থাকতে ভালো লাগছে না। জীবনটা যেন কয়েকদিনেই একঘেঁয়ে হয়ে গেছে। এ থেকে চটজলদি মুক্তি দিতে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ শেষ করেই লাহোর বিমানবন্দরে যাব আমরা। তিনি জানান, স্থানীয় সময় রাত ১১টায় দেশের উদ্দেশে রওনা হবেন বাংলাদেশ টিম। রাত ৩টার দিকে ঢাকায় পৌঁছবেন তারা। পাকিস্তানের রাজধানীর পার্ল কন্টিনেন্টাল হোটেলে থাকছেন সবাই। হোটেলের এক কিলোমিটার থেকে নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে। টিম ম্যানেজমেন্ট জানায়, বুলেটপ্রুফ বাসে যাতায়াত করেন খেলোয়াড়রা। প্রতিটি রুমের পাশে বন্দুক নিয়ে পাহারায় থাকছেন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য। হোটেলের লবি পর্যন্ত খেলোয়াড়দের চলাফেরা সীমাবদ্ধ। কাউকে হোটেলের বাইরে বের হতে দেয়া হচ্ছে না। এ বন্দিজীবন থেকে মুক্তি পেতেই একদিন আগে দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।