২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং, বৃহস্পতিবার
২৫শে জমাদিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

ঢাবিতে বাংলাদেশ ইয়ুথ সিম্পোজিয়াম অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ১০:১৬ পূর্বাহ্ণ , ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২০

ঢাবিতে বাংলাদেশ ইয়ুথ সিম্পোজিয়াম অনুষ্ঠিত

সিএনআই ডেস্ক: দেশের প্রান্তিক এলাকা হতেও বৈশ্বিক পরিমন্ডলে উঠে আসছেন বাংলাদেশের উদ্যোক্তারা। প্রযুক্তিগত এবং অবকাঠামোগত সুবিধা তরুণদের সামনে নতুন নতুন সব উদ্যোক্তাবান্ধব সুবিধা আর ধারণার সমাহার ঘটাচ্ছে। সুতরাং দেশের প্রাণকেন্দ্রে বসে সব ধরনের সুযোগ সুবিধা পেয়েও উদ্যোক্তা শিক্ষা চর্চা না করাটা নেহায়েত বোকামি। যখন দেশের শিক্ষিত সমাজে বেকারত্বের হার বেশী তখনই দেশে ও বিদেশে এই শিক্ষিতরাই উদ্যোক্তা হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করছে একের পর এক। তাইতো শিক্ষা জীবন শেষ হওয়ার আগেই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা যেন নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলতে পারে সে বিষয়ে সকলকে সচেষ্ট করতে “ইয়ুথ স্কুল ফর স্যোসাল এন্ট্রাপ্রেনারস” ও “ঢাকা ইউনিভার্সিটি এন্ট্রাপ্রেনারশিপ ডেভলপমেন্ট ক্লাব” ৮ ফেব্রুয়ারি আয়োজন করেছিল “বাংলাদেশ ইয়ুথ সিম্পোজিয়াম”।

অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সফল উদ্যোক্তা, পরামর্শক, ব্যবসায়ী, ক্যারিয়ার কোচ ও সফল পেশাজীবি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিরাজুল ইসলাম লেকচার হল-এ অনুষ্ঠিত এই আয়োজনের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দি স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মো: আব্দুল আওয়াল।

ওয়াই.এস.এস.ই্-এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট শেখ মোহাম্মদ ইউসুফ হোসেন এর স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে শুরু হয় “বাংলাদেশ ইয়ুথ সিম্পোজিয়াম”। এরপর “আত্মকর্মসংস্থানের সুপরিসর চিত্রপট” নিয়ে আলোকপাত করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. রাফিউদ্দিন আহমেন (রাফি)।

নতুন পন্যের বাজারজাতকরণের উপর যুগোপযোগী ধারণা ও কৌশলগুলো অংশগ্রহণকারীদের মাঝে তুলে ধরেন দি ডেইলি স্টার-এর হেড অব মার্কেটিং মো: তাজদিন হাসান।

উদ্ভাবনের চর্চা বিষয়ক বিশেষ বক্তব্য প্রদান “লিড”-এর প্রেসিডেন্ট ও কুইন ইয়াং লিডার-এর উপদেষ্টা আশফাক জামান, সিপিএ। এরপর একে একে নিজেদের উদ্যোক্তা জীবনের সাফল্যগাথার পিছনের কাহিনী বর্ণনা করেন প্রিয়শপ-এর প্রতিষ্ঠাতা আশিকুল আলম খান, উইমেন ইন ডিজিটাল এর প্রতিষ্ঠাতা আছিয়া নীল, পেন্টাগন ইন্টারন্যাশনাল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক অন্তু করিম, স্টেজ ফর ইয়ুথ এর প্রতিষ্ঠাতা ইলিয়াছ হোসেন। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকেই আরো বেশি উদ্ভাবনী ও উদ্যোক্তা বান্ধব হওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন, প্রধান অতিথি স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ার্স এর সম্মানিত ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আওয়াল।

অপরদিকে পথনির্দেশনা দেওয়ার জন্য সর্ব পর্যাযের সামাজিক উদ্যোক্তারা বরাবরই আগ্রহী। কিন্তু শিক্ষার্থীরাই এই পথে ঝুঁকির কথা বিবেচনা করে অগ্রসর হয় না। তবে সঠিক পরামর্শ ও পাইলট প্রজেক্ট সুপরিকল্পিতভাবে বাস্তবায়ন করতে পারলে ঝুকি অনেক কমানো যায়। একজন অসাধারণ উদ্যোক্তার সাধারণ কার্যাবলি, নতুন আইডিয়া নিয়ে কাজ করার কৌশল নির্ধারণ, নতুন বাজারে প্রবেশের পূর্বে করণীয়, সফল উদ্যোক্তা হওয়ার পথে বাধাঁগুলো ইত্যাদি বিষয়ে আলোকপাত করেন আলোচকগণ।

আলোচনার পাশাপাশি অংশগ্রহণকারীদেরকে উৎসাহ ও উদ্দীপনা দেওয়ার জন্য উপস্থিত বক্তৃতার প্রতিযোগিতারও আয়োজন করা হয়েছিল। প্রতিযোগিদের মধ্যে বিজয়ীদের পুরুষ্কার বিতরণীর মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানা হয়। পুরো উদ্যোক্তাবান্ধব আয়োজনের ডিজিটাল মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছিল “সিএনআই”,কৌশলগত অংশীদার হিসেবে ছিল “গ্লোম্যাক্স” এবং “রকমারি ডট কম”।

বর্তমান ও ভবিষ্যত তরুণ উদ্যোক্তাদের এই মিলনমেলার সাফল্য আয়োজনকে আরো সামনে এগিয়ে নিতে এর পরে দেশের আরো অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একই ধরনের আয়োজন করা হবে পর্যায়ক্রমে- এই আশাবাদ ব্যক্ত করে ইয়ুথ স্কুল ফর স্যোসাল এন্ট্রাপ্রেনারস এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি শেখ মোহাম্মদ ইউসুফ হোসেন।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।