১লা এপ্রিল, ২০২০ ইং, বুধবার
৮ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

ইবি কর্মকর্তার তাচ্ছিল্যপূর্ণ বক্তব্যে ছাত্র সংগঠনের নিন্দা

প্রকাশিত: ৩:১৮ অপরাহ্ণ , ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০

ইবি কর্মকর্তার তাচ্ছিল্যপূর্ণ বক্তব্যে ছাত্র সংগঠনের নিন্দা

সিএনআই ডেস্ক: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে এক কর্মকর্তার কুরুচিপূর্ণ বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ছাত্র সংগঠনগুলো।

শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন ইবি সংসদ এবং ছাত্র মৈত্রী ইবি শাখা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে।

কর্মকর্তাদের ১৬ দফা দাবি আদায়ে চলমান আন্দোলনের অংশ হিসেবে শনিবার বেলা ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত দুই ঘণ্টার কর্মবিরতি এবং অবস্থান কর্মসূচি পালন করে কর্মকর্তা সমিতি।

এ সময় কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সেকশন অফিসার আরিফুল হক বলেন, ‘একটা ছাত্র আসলে আবেদন পত্র লিখতে পারে না, আমি তার প্রমাণ। সার্টিফিকেট তোলার সময় আবেদন পত্র লিখতে হয়। তারা আবেদন পত্র লিখতে পারে না। সে ছাত্র ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয় বিশ্ববিদ্যালয়টা কর্মকর্তাদের নামে লিখে দেওয়া হোক।’

শিক্ষার্থীদের নিয়ে এমন কুরুচিপূর্ণ বক্তব্যে বিভিন্ন অনলাইন ও জাতীয় সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর কর্মকর্তার বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন ইবি সংসদের সভাপতি নুরুন্নবী সবুজ, সাধারণ সম্পাদক জিকে সাদিক। অপর দিকে ছাত্র মৈত্রী ইবি শাখার পক্ষে নিন্দা ও প্রতিবাদ লিপি জ্ঞাপন করেছে সভাপতি আব্দুর বউফ, সাধারণ সম্পাদক মু্তাসিম বিল্লাহ পাপ্পু।

ছাত্র ইউনিয়নের বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দরা বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় করা হয়েছে শিক্ষার্থীদের জন্য। সেকশন অফিসার আরিফুল হক শিক্ষার্থীদের সেবা দেওয়ার জন্য এখানে নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছে। শিক্ষার্থীদের যোগ্যতা মাপার দায়িত্ব তার নয়। শিক্ষার্থীদের নিয়ে তিনি যে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দিয়েছেন আমরা তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বক্তব্য প্রত্যাহার করে তাকে ক্ষমা চাইতে হবে। অন্যথায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে জোরদার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।’

এছাড়াও ছাত্র মৈত্রীর নেতৃবৃন্দরা বলেন, ‘আরিফুল হকের বক্তব্য বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন এবং বর্তমান শিক্ষার্থীদের হৃদয়কে মর্মাহত করেছে। মেধাবী শিক্ষার্থীদের ধিক্কারজনক মন্তব্য করে তিনি প্রকান্তরে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়কে অপমান করছেন। আগামী ২৪ ঘণ্টার মাঝে বক্তব্য প্রত্যাহার করে শিক্ষার্থীদের কাছে তাকে ক্ষমা চাইতে হবে। অন্যথায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে এই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।’


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।