১লা এপ্রিল, ২০২০ ইং, বুধবার
৮ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

শেরপুরে অবৈধ বালু উত্তোলনের দায়ে ১৯টি ড্রেজার ধ্বংস

প্রকাশিত: ৮:৪১ অপরাহ্ণ , ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২০

শেরপুরে অবৈধ বালু উত্তোলনের দায়ে  ১৯টি ড্রেজার ধ্বংস

শেরপুর প্রতিনিধি : শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলায় প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা ও শর্ত অমান্য করে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ১৯টি শ্যালুমেশিন চালিত ড্রেজার পুড়িয়ে ধ্বংস করেছে প্রশাসন। একইসঙ্গে অবৈধভাবে উত্তোলিত প্রায় ১২শ ট্রাক বালু জব্দ করা হয়েছে। ২৪ ফেব্রুয়ারি সোমবার নালিতাবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আরিফুর রহমান, সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লুবনা শারমীন এবং ঝিনাইগাতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুবেল মাহমুদ পৃথক
পৃথকভাবে ওইসব অভিযান পরিচালনা করেন।

প্রশাসন জানায়, বারবার ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করার পর নিষেধাজ্ঞা করা হলেও কিছুতেই মানছে না বালু ব্যবসায়ীরা। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার পরপরই নালিতাবাড়ীর ভোগাই নদীর ভারত সীমান্তঘেঁষা নিষিদ্ধ ৩শ মিটার এবং নাকুগাঁও ব্রিজ থেকে নিষিদ্ধ ৫শ মিটার ও নাকুগাঁও গুচ্ছগ্রামের নদী তীরবর্তী অংশ থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন অব্যাহত রাখে। ফলে নাকুগাঁও গুচ্ছগ্রাম ও সীমান্ত সড়কের নাকুগাঁও ভোগাই নদীতে কোটি কোটি
টাকা ব্যয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ভিত্তিপ্রস্তর করা ব্রিজটি হুমকীর মুখে পড়ে। ইতিমধ্যেই ব্রিজের বেশকিছু পাইল বেরিয়ে পড়েছে এবং পাইলক্যাপ ধ্বসে যেতে শুরু করেছে।

এমতাবস্থায় জেলা প্রশাসনের নির্দেশে সোমবার দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। স্থানীয় বিজিবি সদস্যদের সহযোগিতায় অভিযানকালে নালিতাবাড়ীর ভোগাই নদীর উল্লেখিত নিষিদ্ধ সীমানায় ১৭টি শ্যালুচালিত ড্রেজার আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়। একইসঙ্গে নিষিদ্ধ সীমানা থেকে অবৈধভাবে উত্তোলিত প্রায় ১২শ ট্রাক বালু জব্দ করা হয়। এছাড়াও ঝিনাইগাতির মালিটিলা পাহাড়ি ঝিরিঘেঁষে দরবেশতলা পাহাড়ে ২টি শ্যালুচালিত ড্রেজার আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করে ঝিনাইগাতি উপজেলা প্রশাসন।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।