৫ই এপ্রিল, ২০২০ ইং, রবিবার
১২ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

মা-ভাইকে পিটিয়ে বাড়িছাড়ার অভিযোগ আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে

প্রকাশিত: ৩:১০ অপরাহ্ণ , মার্চ ১৭, ২০২০

মা-ভাইকে পিটিয়ে বাড়িছাড়ার অভিযোগ আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে

সিএনআই ডেস্ক: লালমনিরহাট জেলা পরিষদের সদস্য ও সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি তাহমিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে মা ও ভাইকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার (১৬ মার্চ) বিকেলে লালমনিরহাট সদর থানায় তার মা আনোয়ারা বেগম (৬০) ও ছোট ভাই তাজবিরুল ইসলাম এ অভিযোগে সংবাদ সম্মেলনে করেন।

সংবাদ সম্মেলনে তারা জানান, ‘বড় ছেলে তাহমিদুল ইসলাম পারিবারিক সম্পদ অন্যায়ভাবে গ্রাস করার জন্য দীর্ঘদিন থেকে নানা অপতৎপরতায় লিপ্ত আছেন। তিনি তার সহযোগীদের নিয়ে পারিবারিক অশান্তি সৃষ্টিসহ নানা অত্যাচার ও জুলুম চালিয়ে আসছেন। এর ধারাবাহিকতায় সোমবার সকালে তাহমিদুল ১০-১২ জনকে নিয়ে আমার (আনোয়ারা বেগম) ও ছোট ছেলে তাজবিরুলের ওপর চড়াও হন। তারা বাড়ির আশপাশের ১৮টি সুপারি গাছ, ৪টি আম গাছ ও ২টি লিচু গাছ কেটে ফেলেন। বাধা দিলে তাজবিরুল ও তার স্ত্রী খাদিজাতুল কোবরাকে মারপিট করা হয়। তাহমিদুলের ক্ষমতার দাপটে তার অন্যায় কার্যকলাপে কেউ বাধা দেয়ার সাহস পায় না।’

জানা গেছে, লালমনিরহাট সদর উপজেলার মহেন্দ্রনগর ইউনিয়নের মৃত তোফায়েল হোসেন সরকারের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম। প্রায় ২০ বছর আগে স্বামীকে হারিয়ে ৩ ছেলে ও ৪ মেয়েকে বড় করেন। এক ছেলের মৃত্যুর পর একে একে ৪ মেয়েকে বিয়ে দেন। এর পর দুই ছেলে নিয়ে বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। এর মধ্যে বড় ছেলে সম্পত্তির লোভে মা ও তার ছোট ভাইকে পিটিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেন।

তাজবিরুল ইসলাম বলেন, তাহমিদুল মাকে গালাগালি ও লাঞ্ছিত করে ধাক্কা দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছেন। তিনি হুমকি দিয়ে বলেছেন, আমার সরকার এখন ক্ষমতায় আছে। তোমরা আমার কিছুই করতে পারবা না।

মা আনোয়ারা বেগম বলেন, বড় ছেলের অত্যাচারের প্রতিকার চেয়ে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও লালমনিরহাট সদর থানার ওসির কাছে লিখিত অভিযোগ করেছি। এ বিষয়ে হস্তক্ষেপের জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আকুল আবেদন জানান।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে তাহমিদুল ইসলাম বলেন, ‘বাড়ির রাস্তা নিয়ে ছোট ভাইয়ের সঙ্গে বিবাদ রয়েছে। এ বিষয়ে সকালে ছোট ভাই ও তার স্ত্রী আমাকে গালাগাল করেছেন এবং দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছেন।’

এ বিষয়ে লালমনিরহাট সদর থানা পুলিশের ওসি মাহাফুজুর রহমান জানান, অভিযোগের তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. মতিয়ার রহমান জানান, বিষয়টি পারিবারিক। এ সম্পর্কে আমার জানা নেই। তবে আমি বিষয়টি সর্ম্পকে খোঁজ খবর নিচ্ছি।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।