সোমবার, ২৫শে মে, ২০২০ ইং

নির্দেশনা অমান্য করে ঝুঁকি বাড়াচ্ছেন প্রবাসীরা!

প্রকাশিত: ১:৪৬ অপরাহ্ণ , মার্চ ১৮, ২০২০

নির্দেশনা অমান্য করে ঝুঁকি বাড়াচ্ছেন প্রবাসীরা!

সিএনআই ডেস্ক: করোনাভাইরাস সংক্রমিত দেশ থেকে গত কয়েক সপ্তাহে ৯৪ হাজারের বেশি বাংলাদেশি প্রবাসী দেশে ফিরেছেন। তাদের ১৪ দিন বাধ্যমতামূলক হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা।

অধিকাংশ প্রবাসীই সরকারের নির্দেশনা মানছেন না। সরকারি হিসাবমতে, ২৩১৪ জন এখন হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৪ জন। আরও ৪৪ প্রবাসীকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। গত ফেব্রুয়ারিতে চীনের উহান থেকে আসা ৩১২ জন প্রবাসী এরইমধ্যে আশকোনো হজ ক্যাম্প ছেড়ে গেছেন।

সরকার নতুন করে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন। নিয়ম না মানলে জরিমানা এমনকি কারাদণ্ড দেয়ার কথাও জানানো হয়েছে। তারপর বহু প্রবাসী নির্দেশনা মানছেন না। তাদের বক্তব্য, তারা তো করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হননি।

স্বাস্থ্য বিভাগের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আবুল কালাদ আজাদ বলেছেন, উপজেলা পর্যায়ে সেল্ফ-কোয়ারেন্টাইনে রাখাসহ সার্বিক পরিস্থিতি দেখার জন্য কমিটি হয়েছে। নিয়ম ভঙ্গ হলে উপজেলার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এর জন্য দায়ী থাকবেন। প্রবাসীরা নিয়ম ভঙ্গ করলে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে বলেও স্বীকার করেন তিনি।

করোনা প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশনা:

করোনাভাইরাস যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সে জন্য কোয়ারেন্টাইন থাকা ব্যক্তিরা ১৪ দিন ঘরের বাইরে বের হবেন না। পরিবার আইসোলেশনে থাকা ব্যক্তিকে সহায়তা করবে।

উপজেলা কমিটি প্রবাসীদের বাড়ি চিহ্নিত করবে এবং তাদের কোয়ারেন্টাইন পর্যবেক্ষণ করবে এবং এ বিষয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সংযুক্ত করবে।

কোয়ারেন্টাইনে থাকা লোকদের সংস্পর্শে আসতে পারবে না আত্মীয় ও বন্ধুরা।

নিয়ম ভঙ্গ করলে সংক্রমণ ব্যাধি আইন ২০১৮ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।