সোমবার, ২৫শে মে, ২০২০ ইং

কোভিড ১৯ : পটুয়াখালীতে ৩৮৬ জনকে ছাড়পত্র প্রদান

প্রকাশিত: ৩:৪১ অপরাহ্ণ , মার্চ ২৮, ২০২০

কোভিড ১৯ : পটুয়াখালীতে ৩৮৬ জনকে ছাড়পত্র প্রদান

পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস এর প্রভাবে পটুয়াখালীর শহরে সুনসান নিরবতা
বিরাজ করেছে। পটুয়াখালী শহরের চৌরাস্তা, বাধঘাট, ডিসি বাংলো রোড, তিতাশ মোড় এবং সদর রোডে ফার্মেসী এবং মুদির দোকান ছাড়া সকল দোকান বন্ধ ছিলো। এছাড়াও জরুরী প্রয়োজন ছাড়া কাওকে রাস্তায় বের হতে দেখা যায় নি।
পটুয়াখালীতে গত ২৪ ঘন্টায় হোম কোয়ারেন্টাইনে ৭ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে এবং ৪৪ জনকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। গত ১০ মার্চ হতে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ৬৭১ জন হোম কোয়ারেন্টাইনের মধ্যে ৩৮৬ জনকে ছাড়পত্র প্রদান করা হয়েছে বলে সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নোমান সাদ জানান। করোনা সেল এ দায়িত্বরত সহকারী কমিশনার আসাদুজ্জামান বলেন, পটুয়াখালীতে প্রতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে এ পর্যন্ত কোন সন্দেহ বা আক্রান্ত করোনা রোগী ভর্তি হয়নি। পটুয়াখালী জেলায় দুই একদিনের মধ্যে পিপিইসহ করোনা প্রতিরোধক চিকিৎসা সামগ্রী বরাদ্ধ পাওয়া যাবে। এছাড়াও নিজ উদ্যোগে জেলার প্রানী সম্পদ কর্মকর্তার মাধ্যমে ১৮০ টি পিপিই উপজেলা সমূহে সরবরাহ করা হয়েছে।

পটুয়াখালী জেলায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (শনিবার) করোনা ভাইরাস আক্রান্তের খবর না পাওয়া গেলেও মানুষ স্বস্তিতে নেই। করোনা ভাইরাস প্রভাবে বিদেশ, ঢাকা, চট্রগ্রাম বিভাগ ও বড় বড় শহর থেকে হাজার হাজার মানুষ পটুয়াখালীতে আগমন ঘটায় মানুষ করোনা আতংকে দিন কাটাচ্ছেন। এ কারনেই মানুষ স্ব-ইচ্ছায়, স্ব- উদ্যোগে ছেলে-মেয়ে, পরিবার পরিজন নিয়ে ঘরের বাইরে যাচ্ছেন না। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রশাসন ২৬ মার্চ হতে ১০ দিন পর্যন্ত কাঁচা বাজার, ফার্মেসী, মুদী দোকান ব্যতিত সকল ধরনের দোকান বন্ধ রাখার ঘোষনায় সকল
ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান, অফিস আদালত বন্ধ রয়েছে।

পটুয়াখালী পুলিশ প্রশাসন করোনা সতর্কতামূলক মাইকিংসহ হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা প্রবাসীদের খাবারের ব্যবস্থা করেছে। পটুয়াখালী পৌরসভা মেয়র মহিউদ্দিন আহামেদ ইতিমধ্যে শহরের বিভিন্ন স্থানে জীবানুনাশক স্প্রে
করেছেন। এছাড়াও যে সকল নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রীর দোকান খোলা ছিলো সেগুলো সন্ধার মধ্যে বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে প্রশাসন থেকে। শহরের কোথাও যাতে গনজমায়েতের সৃষ্টি না হয় সে দিকে সতর্ক দৃষ্টি রেখেছে
পটুয়াখালী জেলা প্রশাসন এবং পুলিশ প্রশাসন।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।