সোমবার, ২৫শে মে, ২০২০ ইং

সেই তিন বৃদ্ধের বাড়িতে গিয়ে ক্ষমা চাইলেন ইউএনও, ক্ষমা চেয়ে বাড়ি করে দিতে চাইলেন

প্রকাশিত: ৪:৩১ অপরাহ্ণ , মার্চ ২৮, ২০২০

সেই তিন বৃদ্ধের বাড়িতে গিয়ে ক্ষমা চাইলেন ইউএনও, ক্ষমা চেয়ে বাড়ি করে দিতে চাইলেন

 

সিএনআই ডেস্কঃ মাস্ক ব্যবহার না করায় যশোরের মণিরামপুরে সহকারী কমিশনার, ভূমি (এসি ল্যান্ড) সাইয়েমা হাসানের হাতে লাঞ্ছিত বৃদ্ধদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আহসান উল্লাহ শরিফী। একই সঙ্গে বৃদ্ধদের বাড়ি নির্মাণ করে দিতে চেয়েছেন তিনি।

আজ শনিবার বেলা ১২টার দিকে ওই বৃদ্ধের বাড়িতে যান ইউএনও। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন মণিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম ও স্থানীয় শ্যামকুড় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনি।

বৃদ্ধের বাড়িয়ে গিয়ে ইউএনও ঘোষণা দেন, তাদের বাড়ি নির্মাণ করে দেবেন তিনি।

ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনি জানান, গতকাল শুক্রবার বিকেলে মাস্ক না পরে চিনাটোলা বাজারে যাওয়ায় শ্যামপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ লাউড়ি গ্রামের তরকারি বিক্রেতা, একই গ্রামের এক ভ্যানচালক দিনমজুর ও দক্ষিণ শ্যামকুড় গ্রামের আরেক ভ্যানচালককে কান ধরিয়ে লাঞ্ছিত করেন এসি ল্যান্ড সাইয়েমা হাসান। শুধু তাই নয়, নিজের মুঠোফো বৃদ্ধদের ছবিও তোলেন এসি ল্যান্ড। সেই ঘটনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। ব্যাপক সমালোচনার মুখে আজ তাকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। পরে আজ মণিরামপুরের ইউএনও লাঞ্ছিত ব্যক্তিদের বাড়িতে খাদ্যদ্রব্য নিয়ে যান। এ ছাড়া চেয়ারম্যানের ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে তাদের তিনজনকে আর্থিক সাহায্য দেওয়া হয়।

ইউএনও আহসান উল্লাহ শরিফী বলেন, ‘আমি তাদের বাড়িতে গিয়ে বিষয়টি নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছি। তাদের হাত ধরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্ষমা চেয়েছি। আমি তাদের সার্বিক সহযোগিতাসহ ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছি।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।