সোমবার, ২৫শে মে, ২০২০ ইং

চিরচেনা যানজট-হর্নের শব্দ নেই রাজধানীতে

প্রকাশিত: ৬:৫৬ অপরাহ্ণ , মার্চ ২৯, ২০২০

চিরচেনা যানজট-হর্নের শব্দ নেই রাজধানীতে

সিএনআই ডেস্কঃ  এ যেন এক ভিন্ন ঢাকা। সেই চিরচেনা যানজট ও হর্নের শব্দ নেই। করোনাভাইরাস আতঙ্কে সব ধরনের গণপরিবহন চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। বাস, ট্রেন, নৌযান এবং ফেরি চলাচলও বন্ধ। এর প্রভাব গাবতলী বাসটার্মিনাল এবং তুরাগ নদেও দেখা গেছে।

গাবতলী বাসটার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার কোনো গাড়ি ছেড়ে যাচ্ছে না। দোকানপাটও বন্ধ রয়েছে। একারণে গাবতলী বাসটার্মিনালে গাড়িগুলো সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। আর এ গাড়িগুলোতে নেই কোনো চালক, নেই যাত্রী!

রাজধানীতে গত চার দিন একটিও গণপরিবহন চলাচল করতে দেখা যায়নি। তবে দু-চারটি মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকার দেখা গেছে। কিন্তু রিকশা চলাচল করছে। সন্ধ্যার পরে কিছু পণ্যবাহী ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান লক্ষ্যা করা গেছে।

এদিকে তুরাগ নদেও একই চিত্র দেখা গেছে। তুরাগ নদে যাত্রীবাহী নৌ চলাচলা বন্ধ রয়েছে। তবে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পণ্যবাহী নৌ চলাচল করতে দেখা গেছে।

রোববার বিকেলে সরেজমিনে দেখা গেছে, কয়েকটি লঞ্চ মাটি নিয়ে নৌবন্দরে পৌঁছেছে। লঞ্চ নৌবন্দরে পৌঁছানোর পরে শ্রমিকদেরকে লঞ্চ থেকে মাটি নামাতে দেখা যায়। কিন্তু করোনা সংক্রমণ থেকে রক্ষায় শ্রমিকদের মাস্ক ব্যবহার করতে দেখা যায়নি।

জানতে চাইলে মিলন নামে এক শ্রমিক এই প্রতিবেদককে বলেন, কাজ না করলে আমাদের সংসার চলবে কী ভাবে? তাই করোনার ভয় থাকলেও আমরা কাজ করি।

২৪ মার্চ দেশের সব রুটে থেকে যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বিআইডব্লিউটিএ। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। একই সঙ্গে বিআইডব্লিউটিএ থেকে জানানো হয় যে,পণ্যবাহী নৌ চলাচল করবে।

অন্যদিকে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সারাদেশে গণপরিবহন চলাচলও বন্ধ করা হয়েছে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।