মঙ্গলবার, ২৬শে মে, ২০২০ ইং

সামাজিক দূরত্ব রেখেই দুর্গম পাহাড়ে খাবার পৌছে দিচ্ছেন ইউএনও

প্রকাশিত: ৫:৪৯ অপরাহ্ণ , এপ্রিল ১, ২০২০

সামাজিক দূরত্ব রেখেই দুর্গম পাহাড়ে খাবার পৌছে দিচ্ছেন ইউএনও

রামগড় (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি: করোনা ভাইরাসের প্রভাবে খেটে খাওয়া মানুষগুলি যখন কর্মহীন হয়ে পড়েছে তখন করোনা সংক্রমণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সরকারী সহায়তা মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিচ্ছে উপজেলা প্রশাসন। তারই ধারাবাহিকতায় খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলা নির্বাহী অফিসার আ ন ম বদোরুদ্দোজা এর সার্বিক তত্বাবধানে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদিপ ত্রিপুরা ও থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ সামসুজ্জামান এর ক্লান্তিহীন সহযোগীতায় প্রতিদিন সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে দুর্গম পাহাড়ে খেটে খাওয়া কর্মহীন মানুষের মাঝে ত্রাণ পৌছে দেয়া হচ্ছে।

বুধবার পঞ্চম দিনের মতো ত্রান পৌঁছে দিয়েছেন ১নং রামগড় ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকার দরিদ্র অসহায় ও খেটে খাওয়া মানুষের মাঝে। এ পর্যন্ত উপজেলার রামগড় ও পাতাছড়া ইউনিয়নে বিভিন্ন এলাকার প্রায় ১৩শত পরিবারের মধ্যে প্রতি পরিবারকে চাউল ১০কেজি, আলু ১কেজি, ডাল ৫০০গ্রাম, সয়াবিন তৈল ৫০০ এমএল, লবন ১কেজি ও সাবান ১টি বিতরন করা হয়েছে আর এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানা গেছে।

রামগড় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদিপ ত্রিপুরা বলেন, কর্মহীন খেটে খাওয়া অসহায় মানুষের মাঝে সরকারী সহায়তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার খাদ্য সামগ্রী সকলের দৌড়গোড়ায় পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। উপজেলার প্রত্যেক অসহায় পরিবারের মাঝে এই সহায়তা পৌঁছে দিতে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

রামগড় উপজেলা নির্বাহী অফিসার আ.ন.ম বদরুদ্দোজা বলেন, এ পর্যন্ত উপজেলার প্রায় ১ হাজার তিনশত পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী দিয়ে সহায়তা করা হয়েছে। আগামীতেও এ সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সজিব কান্তি রুদ্র, উপজেলা কৃষি অফিসার নাচির উদ্দিন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা কাউচার আহাম্মেদ, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আজিজুল আঞ্জুম, ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা ডলার ত্রিপুরা, উপজেলা আইসিটি কর্মকর্তা রেহান উদ্দিন, ১নং ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলম মজুমদার ও ২নং ইউপি চেয়ারম্যান মনিন্দ্র ত্রিপুরা সহ স্থানিয় সাংবাদিকরা।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।