শুক্রবার, ২৯শে মে, ২০২০ ইং

হাতের মুঠোয় করোনার দাওয়াই! গবেষকদের দাবি ঘিরে চাঞ্চল্য

প্রকাশিত: ৯:০১ অপরাহ্ণ , এপ্রিল ৩, ২০২০

হাতের মুঠোয় করোনার দাওয়াই! গবেষকদের দাবি ঘিরে চাঞ্চল্য

করোনা ভাইরাসের মোকাবিলার ভ্যাকসিন আবিষ্কার হয়েছে বলে দাবি করলেন আমেরিকার গবেষকরা। ইউনিভার্সিটি অব পিটসবার্গ স্কুল অব মেডিসিনের গবেষকরা জানিয়েছেন, তাঁরা ইঁদুরের উপর সেই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করেছিলেন। সেই পরীক্ষা সফল হয়েছে বলেই জানিয়েছেন ওই গবেষকরা। জানা গিয়েছে, তাদের সেই ভ্যাকসিন ইঁদুরের শরীরে শক্তিশালী অ্যান্টিবডি তৈরি করেছে যা করোনার জীবাণুর সংক্রমণ রুখতে সক্ষম হবে। মানুষের শরীরে এই প্রয়োগ আর সময়ের অপেক্ষামাত্র বলে দাবি করা হয়েছে।

প্রথম ই-বায়ো মেডিসিন(eBiomedicine) পেপারে এই রিসার্চ আর্টিকল ছাপা হয়। যা পরে সামনে আনে ল্যানসেট মেডিক্যাল জার্নাল (The Lancet)। জানা গিয়েছে, ২০০৩ সালে সার্স (SARS-CoV) ও ২০১৪ সালে মার্স (MERS-CoV) ভাইরাসের প্রতিরোধী ভ্যাকসিনও তৈরি হয়েছিল এখানে। পিট স্কুল অব মেডিসিনের সার্জারি বিভাগের গবেষক-অধ্যাপক অ্যান্দ্রেয়া গ্যামবোট্টো জানান, “আগের দুটো মহামারির ভয়াবহতা আমরা দেখেছি। তখনও ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা হয়েছিল। সার্স-কভ-২ ভাইরাসের সঙ্গে সার্স ও মার্স ভাইরাসের মিল রয়েছে। তাই এই নতুন ভাইরাসের ভ্যাকসিন কেমন হবে সেটা অনুমান করা গিয়েছে।” আগামী দু’সপ্তাহ মধ্যেই মানুষের উপর এই ভ্যাকসিনের প্রয়োগ হতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

পিটসবার্গ করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিন পরীক্ষামূলক এমআরএনএ ভ্যাকসিন ক্যানডিডেটের (mRNA Vaccine Candidate) থেকেও বেশি উপযোগী হবে বলে দাবি করেছেন, পিটসবার্গ স্কুল অব মেডিসিনেরই ভাইরোলজিস্ট লুইস ফালো। তিনি বলেছেন, “সার্স-কভ-২ ভাইরাল প্রোটিনগুলোকে শনাক্ত করে ল্যাবেই এমন ভাইরাল প্রোটিন বানানো হয়েছে।এই প্রোটিন দেহকোষে শক্তিশালী অ্যান্টিবডি তৈরি করবে। ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।” তিনি আরও জানান, স্রেফ করোনা নয়, আগামী দিনে এমন কোনও সংক্রামক রোগ রুখতেও এই ভ্যাকসিন কাজে আসতে পারে।

সূত্র: সংবাদ প্র্রতিদিন।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।