মঙ্গলবার, ২৬শে মে, ২০২০ ইং

রসুন উঠানোকে কেন্দ্র করে চাটমোহরে দুইপক্ষের সংঘর্ষে আহত ২০

প্রকাশিত: ৯:১৩ অপরাহ্ণ , এপ্রিল ৪, ২০২০

রসুন উঠানোকে কেন্দ্র করে চাটমোহরে দুইপক্ষের সংঘর্ষে আহত ২০

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি: পাবনার চাটমোহর উপজেলার বিলচলন ইউনিয়নের বড় শিংগা গ্রামে জমি থেকে রসুন উঠানোকে কেন্দ্র করে আজ শনিবার দুপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে।

গুরুতর আহত ১৭ জনকে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আর অবস্থার অবনতি হওয়ায় তিনজনকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আহতরা হলেন বড় শিংগা গ্রামের হেলালের ছেলে মামুন (২৮), মৃত জিন্নাত প্রামানিকের ছেলে দুলাল (৫৫), জালাল (৬০), ময়েজ প্রামানিকের ছেলে ইব্রাহিম (৫৫), আফজাল প্রামানিক (৬২), নাছু প্রামানিকের ছেলে নাঈম (১৯), নাজমুল হোসেনের স্ত্রী আমেনা খাতুন (২৮), রইচ উদ্দিনের ছেলে আবদুল্লা (২০), মইজ উদ্দিনের ছেলে রফিক(৬৫), আফছার আলীর ছেলে মোস্তফা (৫০), আবজাল প্রামানিকের ছেলে জয়নাল আবেদিন (৩০), আয়নাল (৩৫), আজাহার আলীর ছেলে শরিফুল ইসলাম (৪৫), নওশের আলীর ছেলে পিপুল(১৯), জালালের ছেলে আনোয়ার (৩৫), তুষার (২০) ও নাজিমুদ্দিনের ছেলে নওশের আলী (৪৮)।

এলাকাবাসী জানায়, ৩/৪ দিন পূর্বে হেলালের জমিতে জয়নালের ছেলে রসুন উঠাতে গেলে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। এসময় উভয় পক্ষই থানায় অভিযোগ দায়ের করে। থানায় শালিশ বৈঠকের মাধ্যমে বিষয়টি সমাধান হওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্তা তা হয়নি।
শনিবার বোথর ঘাটে হেলালের ছেলে মামুনের সাথে আয়নালের বাকবিতন্ডা হয়। পরে উভয় পক্ষ একে অপরের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়। গুরুতর আহত ১৭ জনকে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর আহত দুলাল,চচ জালাল ও মামুনকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেখ নাসীর উদ্দিন জানান, পরিবেশ এখন শান্ত আছে। অভিযোগ তদন্ত শেষে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।