মঙ্গলবার, ২৬শে মে, ২০২০ ইং

দিনাজপুরে কৃষকদের ধান অ্যাপের মাধ্যমে বিক্রি করতে খাদ্য বিভাগের প্রচারনা

প্রকাশিত: ৩:৪৪ অপরাহ্ণ , এপ্রিল ৩০, ২০২০

দিনাজপুরে কৃষকদের ধান অ্যাপের মাধ্যমে বিক্রি করতে খাদ্য বিভাগের প্রচারনা

দিনাজপুর প্রতিনিধি:  দিনাজপুর সদর উপজেলায় চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে খাদ্য বিভাগ সরাসরি কৃষকের নিকট থেকে অ্যাপের মাধ্যমে ধান ক্রয়ের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারন করে কৃষকদের খাদ্য বিভাগে অন-লাইনে নিবন্ধন আবেদনের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে মাইকিং করে প্রচারনা চালাচ্ছেন।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই শুধু মাত্র দিনাজপুর সদর উপজেলার ১০ টি ইউনিয়ন ও দিনাজপুর পৌর সভার মধ্যে বসবাসকারী জন সাধারনের নিকট থেকে আ্যাস এম মাধ্যমে ইরি ধান ক্রয় করা হবে এই মর্মে মাইকিং প্রচারনার করেন জেলা কৃষি বিভাগ ।

দিনাজপুর সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রন কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম জানান, চলতি ইরি বোরো মৌসুমে জেলার সদর উপজেলায় সরকার নির্ধারিত মূল্যে অ্যাপের মাধ্যমে কৃষকদের নিকট থেকে সরাসরি ধান ক্রয় করতে অনলাইনে খাদ্য বিভাগে আবেদনের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে মাইকিং করে সচেতনা কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। তিনি জানান, বৃহস্পতিবার ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সদর উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন থেকে অন-লাইনে ২৫ হাজার ৯৬৭টি আবেদন নিবন্ধন করা হয়েছে। আবেদনগুলোর মধ্যে খাদ্য বিভাগ যাচাই বাছাই করে ২২ হাজার ৭৪২টি বৈধ্য হিসেবে গণ্য করেছে। ৩ হাজার ৭৭টি আবেদন পূর্ন বিবেচনার জন্য রাখা হয়েছে ৪টি আবেদন ত্রুটি পূর্ন থাকায় বাতিল করা হয়েছে। এপর্যন্ত ধান বিক্রির জন্য ১৯ হাজার ৬২৭টি আবেদন গ্রহন করে তাদের নিকট
থেকে সরাসরি ধান ক্রয়ের জন্য গ্রহন করা হয়েছে।

তিনি আরোও জানান করোনা পরিস্থিতির জন্য আগামী ৭ মে পর্যন্ত অন-লাইন কৃষকদের নিকট থেকে আবেদন গ্রহন করা হবে। এবারে সদর উপজেলায় বোরো মৌসুমে ২ হাজার ৪০৯ মেট্রিক টন ধান কৃষকদের নিকট থেকে সরকার ঘোষিত মূল্যে অন-লাইনের আবেদনের মাধ্যমে গ্রহন করা হবে। আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বোরো ধান নিবন্ধন কৃত কৃষকদের নিকট হতে গ্রহন করা হবে।

তিনি জানান, চলতি বছর দেশে ভয়াবহ করোনা ভাইরাসকে উপেক্ষা করেও অ্যাপের মাধ্যমে ধান সংগ্রহ কার্যক্রম ধান সংগ্রহ কার্যক্রম চলবে। উল্লেখ্য যে, গত আমন মৌসুমে জেলায় ৫ হাজার ৮০০ জন কৃষক ধান বিক্রির জন্য খাদ্য বিভাগে আবেদন করেছিল। আবেদন করা কৃষকরা সহজেই সরকারী মুল্যে খাদ্য গুদামে ধান বিক্রি করতে পেড়ে তারা ন্যায্য মূল্য পেয়েছেন। ফলে সদর উপজেলার কৃষকদের মধ্যে অ্যাপের মাধ্যমে খাদ্য গুদামে ধান বিক্রির জন্য একটি উৎসাহ উদ্দিপনা রয়েছে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।