বুধবার, ২৭শে মে, ২০২০ ইং

নানামুখি সঙ্কটে গাইবান্ধার ক্ষুদ্র উদ্যোগতারা

প্রকাশিত: ৩:৪৯ অপরাহ্ণ , মে ১১, ২০২০

নানামুখি সঙ্কটে গাইবান্ধার ক্ষুদ্র উদ্যোগতারা

গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাসের চলমান পরিস্থিতির কারনে সঙ্কেটে পড়েছে গাইবান্ধায় কৃষি ভিত্তিক ক্ষুদ্র উদ্যোগতারা। হাঁস, মুরগির মাংস-ডিমের ও দুধ চাহিদা কমে যাওয়া এবং বাজার বিক্রি করতে না পেরে লোকশানে পড়েছে তারা। ঋণ নিয়ে ছোট ছোটে নানা খামার গড়ে স্বাবলম্বী হওয়ার পথ দেখা শত শত ক্ষুদ্র খামারী পুঁজি হারিয়ে পথে বসার উপক্রম হয়েছে। এসব খামারগুলো টিকিয়ে রাখতে সরকারের নিকট সহায়তার দাবি জানিয়েছেন তারা। কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাসের কারণে দেশে ক্ষতির মুখে পরা ক্ষুদ্র এসব উদ্যোগতারা

সরকারী সহায়তা পেলে ক্ষতি কাটিয়ে নতুন করে ঘরে দাঁড়াবে এমটি প্রত্যাশা সকলের। জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জের পুনতাইর গাড়ামাড়া গ্রামের আঞ্জু আরা বেগম স্থানীয় পল্লী উন্নয়ন অফিসের মাধ্যমে গাইবান্ধায় সম্মনিত পল্লী দারিদ্র দূরীকরণ নামে একটি প্রকল্প মাধ্যমে হাঁস মুরগি পালনের উপর প্রশিক্ষণ শেষে ক্ষুদ্র ঋণ নিয়ে ৩শ’ হাঁসের একটি খামার গড়ে তোলেন।

খামার থেকে উৎপাদিত ডিম বিক্রি করে স্বাবলম্বী হওয়ার পথ খুঁজে পেয়েছিলেন। হঠাৎ করোনা ভাইরাসের কারণে ডিমের বাজার মুল্য কমে যাওয়ায় লোকশানের পরেছেন তিনি। তার মত অনেক ক্ষুদ্র উদ্যোগতা কেউ কবুতর কেউ ভেঁড়া, গাভী, ছাগলের খামার দিয়েছেন আঞ্জু আরা বেগমের মত তাদেরও একই অবস্থা। এক দিকে পুঁজি হারানো ও অন্য দিকে ঋণ পরিশোধের দুশ্চিতায় দিন কাটছে তাদের।

হাঁসের খামারের মালিক জসিম মিয়া বলেন, এসব ছোট ছোট ক্ষুদ্র প্রান্তিক খামারীরা জানিয়েছেন প্রশিক্ষনের পর ঋন নিয়ে খামার করায় তারা উন্নতি করলেও দেশে চলমান করোনা পরিস্থিতির কারনে হাঁস, ডিম, গাভীর দুধসহ তাদের উৎপাদিত কোন কিছুই বিক্রি করতে পারছেনা। এতে চরম লোকশানে পরেছেন তারা।

এক দিনের বাঁচ্চা উৎপাদনকারি হ্যাচারী মালিক মোঃ হাবিব জানান, আমরাতো মাঠে মারা যাবো। ঋন নিয়ে খামার করে আগের দিনগুলো ভালো গেলেও করোনা ভাইরাস আমাদের সব শেষ করে দিলো। বাঁচ্চা উৎপাদন করলে তা বিক্রি হচ্ছে না। এতে খরচ বেড়ে প্রতিনিয়ত। এ কারণে লোকশানে পরা মুলধন হারানো এসব ক্ষুদ্র উদ্যোগতা নতুন করে ঘুরে দাঁড়াতে সরকারি সহায়তার দাবি তার।

এ ব্যাপারে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ এনামুল হক বলেন, গাইবান্ধা দারিদ্র বিমোচন প্রকল্পে কৃষি, মৎস্য, প্রাণি সম্পদ ও পাট জাত পণ্য তৈরিসহ নানা বিষয়ে প্রশিক্ষণ নেওয়া অনেক ক্ষুদ্র উদ্যোগতা সৃষ্টি হয়েছে। দেশে চলমান করোনা পরিস্থিতিতে লোকশানে পড়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত এসব উদ্যোগতাদের বিষয়টি উদ্ধর্তন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। যাতে তারা সরকারি সহায়তা পায়।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।