শনিবার, ৩০শে মে, ২০২০ ইং

নাগরপুর গয়হাটায় গড়ে উঠেছে নিরাপদ সবজি গ্রাম

প্রকাশিত: ২:০৬ অপরাহ্ণ , মে ১৯, ২০২০

নাগরপুর গয়হাটায় গড়ে উঠেছে নিরাপদ সবজি গ্রাম
নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইল নাগরপুরে স্থানীয় সাংসদ আহসানুল ইসলাম টিটুর সহযোগিতায় ও উপজেলা কৃষি অফিসের পরামর্শে গড়ে উঠেছে নিরাপদ সবজি গ্রাম।উপজেলার গয়হাটা ইউনিয়নের বঙ্গবকুটিয়া গ্রামকে নিরাপদ সবজি গ্রাম হিসেবে ঘোষনা করা হয়েছে।এ গ্রামের সবজি চাষীরা উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে রাসায়নিক সার প্রয়োগ ছাড়াই মিষ্টি কুমড়া,বিটি বেগুন,বরবটি,পটল সহ নানা ধরনের সবজি চাষ করে আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন।
বংগবকুটিয়া গ্রামে সবজি চাষে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করে চলেছেন  উপজলা উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ছরোয়ার হোসেন। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন,সবজি চাষে কৃষকদের বিভিন্ন উন্নত প্রযুক্তি সম্পর্কে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহার করে পোকার হাত থেকে কৃষকরা রক্ষা পাচ্ছে। সেক্স ফেরোমন ফাঁদ হচ্ছে এক ধরনের কীটপতঙ্গের দমন পদ্ধতি।
এ পদ্ধতিতে প্লাস্টিকের বক্স ব্যবহার করা হয়, যার দু’পাশে ত্রিকোনাকৃতি ফাঁক থাকে। পুরুষ পোকাকে আকৃষ্ট করতে স্ত্রী পোকা কর্তৃক নিঃসৃত এক ধরনের রাসায়নিক পদার্থ (স্ত্রী পোকার গন্ধ) ব্যবহার করা হয়, যা স্বাভাবিক গন্ধ থেকে অনেক বেশি।  এটিই  সেক্স ফেরোমন নামে পরিচিত।
 কুমড়াজাতীয় ফসল, সবজি, ফলসহ নানা চাষাবাদে এ পদ্ধতির চমকপ্রদ কার্যকারিতার কারণে কৃষকদের মাঝে এটি জাদুর ফাঁদ বা তাবিজ নামেও পরিচিত।এটি একটি অসাধারণ পোকা দমন পদ্ধতি, এতে উৎপাদন খরচ কম হয় এবং বিষ মুক্ত সবজি পাওয়া যায়।বর্তমানে নাগরপুরে সব ইউনিয়নেই এই প্রযুক্তি ব্যবহৃত হচ্ছে।এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল মতিন বিশ্বাস বলেন,নাগরপুরে স্থানীয় সাংসদ আহসানুল ইসলাম টিটুর সার্বিক সহযোগিতায় ও কৃষি অধিদপ্তরের পরামর্শে বঙ্গবকুটিয়া এখন একটি আদর্শ নিরাপদ সবজি গ্রাম।স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে ঢাকা সহ দেশের বাইরে এই গ্রামের উৎপাদিত সবজি রপ্তানি হবে বলে আমি আশাবাদ ব্যক্ত করছি।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।