সোমবার, ৬ই জুলাই, ২০২০ ইং

নড়াইলে ঘূর্নিঝড় আম্পানে লন্ডভন্ড অরুনিমা রিসোর্ট ও গলফ ক্লাব , ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতির আশংকা!

প্রকাশিত: ৩:১৯ অপরাহ্ণ , মে ২১, ২০২০

নড়াইলে ঘূর্নিঝড় আম্পানে লন্ডভন্ড অরুনিমা রিসোর্ট ও গলফ ক্লাব , ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতির আশংকা!
নড়াইল প্রতিনিধি:  ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তান্ডবে নড়াইলের নড়াগাতী থানার পানিপাড়া গ্রামে অবস্থিত অরুনিমা রিসোর্ট গলফ ক্লাব ও শাহবাজ এগ্রো ফাউন্ডেশনে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি সাধিত হয়েছে। ঝড়ের তাণ্ডবে রিসোর্টের বেশকিছু গেষ্ট রুমের চাল উড়ে গেছে,কাঠের ঘরগুলো নড়বড়ে হয়ে হেলে পড়েছে।  রেষ্টুরেন্ট ভেঙে গিয়েছে,  রেষ্টুরেন্টে রাখা  রিসোর্টের মজুদ করে রাখা খাবার নষ্ট হয়ে গেছে।   অফিসিয়াল  বিভিন্ন ধরনের ফাইল, জরুরি কাগজপত্র, কম্পিউটার, শীততাপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র থেকে শুরু করে অনেক কিছু ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানান ম্যানেজার ইনচার্জ মুনিব এইচ খন্দকার।
অন্যদিকে শাহবাজ এগ্রো ফাউন্ডেশনের অনেক ফলজ, বনজ, ও সৌন্দর্য বর্ধক গাছ ভেঙ্গে গেছে। কিছু শিকড় উপড়ে পড়েছে।  রিসোর্ট সংলগ্ন শাহবাজ এগ্রো ফাউন্ডেশন মৎস চাষ করে থাকে, পুকুরের পাড় ভেঙে পড়ায় পাশের জলাশয়ে মাছ চলে যাওয়ার আশংকা করছে  শাহবাজ এগ্রো  কতৃপক্ষ। ভয়াবহ করোনা ভাইরাসের প্রভাবে সারাদেশ লকডাউন থাকায় মাছের পোনা ও খাবার সঠিক সময়ে আনা সম্ভব হয়নি।এতে উৎপাদন অনেক কমে গিয়েছে। এছাড়া অন্যান্য উৎপাদিত পণ্যদ্রব্য ঠিক মতো বাজারজাতকরণ না করতে পারায় প্রচুর ক্ষতি সাধিত হয়েছে।করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে গত ২০ মার্চ থেকে নড়াইল সহ দেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র অরুনিমা রিসোর্ট গলফ ক্লাব বন্ধ ঘোষণা করা হয়। ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের প্রভাবে দুটো প্রতিষ্ঠানের ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতির আশংকা করছে রিসোর্ট ও শাহবাজ এগ্রোর ব্যাবস্হাপনা পরিচালক ইরফান আহমেদ।
ঘুর্নিঝড় আম্পানের ক্ষয় ক্ষতির ব্যাপারে জানতে চাইলে ব্যাবস্হাপনা পরিচালক  ইরফান আহমেদ বলেন  নড়াইল জেলায়  বেশ কয়েকবার শীর্ষ ভ্যাট দানকারি প্রতিষ্ঠান অরুনিমা রিসোর্ট গলফ ক্লাব ও সংলগ্ন শাহবাজ এগ্রো ফাউন্ডেশন। এখানে   ৭০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী কর্মরত আছেন । এছাড়া পরোক্ষভাবে অসংখ্য মানুষ এ প্রতিষ্ঠান দুটির উপর নির্ভর করে জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। এই মুহুর্তে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান জানা যাচ্ছে না। তবে
সরকারের সহযোগিতা ছাড়া এ ক্ষতি কাটিয়ে উঠা সম্ভব হবে না। ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে না পারলে প্রতিষ্ঠান দুটি বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশংকা রয়েছে। এতে কর্মহীন হয়ে পড়বেন অনেকেই। এবং যা পর্যটন শিল্পের জন্য অবশ্যই নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।