সোমবার, ৬ই জুলাই, ২০২০ ইং

আড়াইশ’রও বেশী লেবু গাছ এক রাতেই কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা!

প্রকাশিত: ৫:৪৮ অপরাহ্ণ , মে ২৭, ২০২০

আড়াইশ’রও বেশী লেবু গাছ এক রাতেই কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা!

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ এটা কেমন শ্ত্রুতা আর কেমনই বা প্রতিশোধ। মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ইদ্রিস মিয়া নামে এক ব্যক্তির পাচঁ বিঘা জমির বাণিজ্যিক ভিত্তিতে লাগানো প্রায় আড়াইশ’রও বেশী লেবু গাছ এক রাতেই কেটে ফেলেছে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার (২৬ মে) রাতে উপজেলার আশিদ্রোণ ইউনিয়নের মোহাজেরাবাদ
এলাকায় দুর্বৃত্তরা একান্ড ঘটায়। এতে প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকা ক্ষতি হয়েছে।

লেবু বাগান মালিকের অভিযোগ পেয়ে সরেজমিনে দেখা যায়,মোহাজেরাবাদ এলাকার দক্ষিন পাড়ার উচু টিলায় সারিবদ্ধভাবে লেবু ও আনারসের বিশাল বাগান গড়ে উঠেছে।ওই এলাকার মো. ইদ্রিস মিয়া সেখানে লেবু ও আনারস চাষাবাদ শুরু করেন।বাগানে এক হাজার’ লেবু গাছ রয়েছে। রাতের আধারে দুর্বৃত্তরা ফলনসহ ২৫০টিরও বেশী জীবন্ত লেবু গাছ কর্তন করে দেয়।

লেবু বাগান মালিক ইদ্রিস মিয়া অভিাযোগ করে বলেন, নিজের শরীরেও আঘাত করলে এতোটা কষ্ট পেতে হতো না, যেভাবে আমার লেবু বাগানের গাছগুলো কেটে নষ্ট করা হয়েছে। নষ্ট করে দেয়া প্রত্যেকটি লেবু গাছে
আড়াইশ থেকে তিনশ লেবু ধরেছে এগুলো বিক্রয় করার উপযুক্ত হলে বিক্রয় করলে প্রায় ৫ লাখ টাকারও বেশী লাভ হতো।কিন্তু এখন আমার পুরোটাই ক্ষতি সাধিত হয়েছে।

এলাকার লেবু বাগান মালিক মো. জহির মিয়া জানান, এঘটনায় আমরা অন্য যারা লেবু বাগান আছি আমরা আতঙ্কে আছি।আমাদেরও বাগানেও এরকম আক্রমন হতেস পারে।আমরা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।যে বা যারা এই কর্মকান্ডের সাথে জড়িত আছেন তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় হউক।

এব্যাপারে ইউপি সদস্য মো. ফারুক আহমেদ জানান,লেবু বাগান মালিক মো. ইদ্রিস মিয়ার বাগানে দুবৃত্তরা যে অমানবিক কাজ করেছে তা খুবই ন্যাক্কারজনক।তার সাথে যদি কারও পূর্ব শ্ত্রুতা থাকতো তাহলে এলাকার জনপ্রতিনিধি ও বিশিষ্টজনের মাধ্যমে তা সমাধান করা যেতো। কিন্তু এই রকম কর্মকান্ড করা মোটেও ঠিক হয়নি।এই কর্মকান্ডে তার ব্যপক ক্ষতি হয়েছে। যে বা যারা এই কাজ করেছে তাদের খুজে বের করে আইনের আওতায় এনে ক্ষতিপূরন দাবি জানাচ্ছি। এব্যাপারে শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুছ ছালেক
বলেন,‘বিষয়টি সাধারণ ডায়েরি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত চলছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।