শনিবার, ৪ঠা জুলাই, ২০২০ ইং

জামালপুর পিসিআর ল্যাবের যান্ত্রিক ত্রুটি  

প্রকাশিত: ৮:১৪ অপরাহ্ণ , মে ২৮, ২০২০

জামালপুর পিসিআর ল্যাবের যান্ত্রিক ত্রুটি  
জামালপুর প্রতিনিধিঃ  যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে ২৭ মে জামালপুরের শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজের পিসিআর ল্যাবে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা বন্ধ রাখা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে ল্যাব চালু করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ল্যাব ইনচার্জ অধ্যাপক চিকিৎসক এ কে এম মুসা।
শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজের পিসিআর ল্যাব ইনচার্জ অধ্যাপক চিকিৎসক এ কে এম মুসা এ প্রতিবেদককে জানান, ২৭ মে পিসিআর ল্যাবে আকস্মিক যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। ফলে এই দিন নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হয়নি। ল্যাবের হার্ডওয়্যারে ত্রুটি দেখা দেওয়ায় পিসির সাথে সংযোগ হচ্ছে না। বিষয়টি নিয়ে ঢাকায় সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীদের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে ল্যাবটি চালু করা সম্ভব হবে। তবে জামালপুর জেলার সংগৃহীত নমুনাগুলো ময়মনসিংহের পিসিআর ল্যাবে পাঠিয়ে নমুনা পরীক্ষার কার্যক্রম চলমান রাখা হবে। যান্ত্রিক ত্রুটি সারিয়ে জামালপুরের ল্যাবটি চালু হলে যথারীতি এই ল্যাবেই নমুনা পরীক্ষা শুরু করা হবে।
এদিকে জামালপুরের সিভিল সার্জন চিকিৎসক প্রণয় কান্তি দাস এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘পিসিআর ল্যাবে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে ২৭ মে সেখানে নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হয়নি বলে ল্যাব ইনচার্জ অধ্যাপক চিকিৎসক এ কে এম মুসা মৌখিভাবে আমাকে জানিয়েছেন। ল্যাবে জমা থাকা ৭৫টি নমুনা এবং ২৭ মে জেলার সাতটি উপজেলা থেকে সংগৃহীত ১০০টি নমুনাসহ মোট ১৭৫টি নমুনা ২৮ মে সকালে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠিয়ে পরীক্ষা করানো হবে বলে আমাকে নিশ্চিত করেছেন জামালপুর পিসিআর ল্যাব ইনচার্জ।
প্রসঙ্গত, গত ১২ মে প্রথম পরীক্ষামূলক নমুনা পরীক্ষার মধ্য দিয়ে এই ল্যাবের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়। প্রথম পর্যায়ে একটি ব্যাচে কলেজটির মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক এ কে এম মুসাকে ল্যাব ইনচার্জ করে সহযোগী ও সহকারী অধ্যাপক, মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টসহ ১৪ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়ে ল্যাবটির যাত্রা শুরু হয়। ইতিমধ্যে এই ল্যাবে কর্মরত প্রভাষক পদমর্যাদার চারজন চিকিৎসক করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়ে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন থাকায় জনবল সঙ্কট দেখা দিয়েছে। ল্যাবে বিদ্যমান জনবল দিয়ে একটি ব্যাচে প্রতিদিন ৯৩টি নমুনা পরীক্ষার সক্ষমতা থাকলেও গত ১২ মে থেকে ২৫ মে পর্যন্ত পনের দিনে এই ল্যাবে ৮৬১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে প্রতিদিন গড়ে ৫৮টি নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হয়েছে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।