শনিবার, ৪ঠা জুলাই, ২০২০ ইং

মহেশখালীতে মায়ানমারের ট্রলার সহ ইয়াবা সিন্ডিকেটের তিন সদস্য আটক

প্রকাশিত: ৫:৪০ অপরাহ্ণ , জুন ২৯, ২০২০

মহেশখালীতে মায়ানমারের ট্রলার সহ ইয়াবা সিন্ডিকেটের তিন সদস্য আটক

কক্সবাজার প্রতিনিধিঃ মহেশখালীর কুতুবজোমে মায়ানমারের তিন নাগরিক সহ ট্রলার আটকের ঘটনায় আলোচনায় আসছে স্থানীয় এক হাইব্রিড নেতা সহ দুই জামাত নেতার সিন্ডিকেটের নাম। ২৯ জুন সকাল ১১টায় নয়াপাড়া চরপাড়ার পশ্চিমে সন্দেহজনক ট্রলারটি স্থানীয়রা আটক করে। এসময় ট্রলার থেকে সিন্ডিকেটের অন্য সদস্যরা পালিয়ে গেলেও তিনজন মায়ানমারের নাগরিক জনতার হাতে আটক হয় বলে জানা যায়। আটকৃতরা হলেন- মোঃ আলিজা, দিল মোহাম্মদ, ছব্বির আহমদ। তারা তিনজন সহ ট্রলারটি মায়ানমারের বলে জানায় তারা।

জানা যায়, সরাসরি মায়ানমার থেকে ইয়াবা এনে কুতুবজোম এলাকার একটি সিন্ডিকেটের কাছে দীর্ঘদিন ধরে বিক্রি করছে তারা। সকালে ইয়াবার চালানটি ট্রলার থেকে পূর্ব পরিকল্পনা মত কুতুবজোমের সিন্ডিকেটের সদস্যরা নিয়ে যায়। সিন্ডিকেটের এক সদস্যের নাম মোঃ কালু বলে জানায় তারা। স্থানীয়রা জানান, মোঃ কালু তাজিয়াকাটা গ্রামের বাসিন্দা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ অবস্থান করছে বলে জানা যায়।

এদিকে ইয়াবার চালানে ব্যবহৃত মায়ানমারের ট্রলার ও তিন নাগরিক আটকের ঘটনা প্রকাশ পেলে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ইতিমধ্যে গাঁ ঢাকা দিয়েছে এলাকার কিছু চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক সূত্র জানায়, কুতুবজোমের কথিত আওয়ামিলীগ নেতা আব্দুর রহিম, জামাত নেতা মাওলানা গফুর ও বর্তমান ইউপি মেম্বার শাহ আলমের নেতৃত্বে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবার একটি সিন্ডিকেট ব্যবসা করে আসছে। আটককৃত মায়ানমারের সিন্ডিকেটটি এই সিন্ডিকেটের অংশ বলে ধারণা করা হচ্ছে। এদিকে তাজিয়াকাটার মোঃ কালুর সাথেও তাদের সখ্যতা রয়েছে বলেও সূত্রটি জানায়।

এই ব্যাপারে মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ জানান, মায়ানমারের নাগরিক সহ ট্রলার আটকের সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথেই পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আটককৃতদের থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদের পর বিস্তারিত জানানো হবে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।