শনিবার, ৪ঠা জুলাই, ২০২০ ইং

মহাসড়কে চাঁদাবাজি ও তিন চাকার যান বন্ধে কঠোর অবস্থানে দোহাজারী হাইওয়ে পুলিশ

প্রকাশিত: ৫:৫১ অপরাহ্ণ , জুন ২৯, ২০২০

মহাসড়কে চাঁদাবাজি ও তিন চাকার যান বন্ধে কঠোর অবস্থানে দোহাজারী হাইওয়ে পুলিশ
শাহজাদা মিনহাজ  লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ  চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধ ও করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে যানবাহন ও যাত্রীদের নিরাপদ চলাচল নির্বিঘ্ন করতে নানামুখী প্রদক্ষেপ গ্রহণ করে যাচ্ছেন দোহাজারী হাইওয়ে পুলিশ। গত ১জুন থেকে হাইওয়ে পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি ও পুলিশ সুপারের নির্দেশে দোহাজারী হাইওয়ে থানার ওসি ইয়াছির আরফাত,  থানার অন্যন্য অফিসার ও ফোর্সরা এ কর্মসূচি পালন করে চলছে। ফলে মহাসড়কে স্বস্তি আসায় খুশি যাত্রী ও সচেতন মহল।
হাইওয়ে পুলিশ সুত্রে জানা যায়, দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমন বৃদ্ধি পাওয়ায সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন জেলাও উপজেলায়  লকডাউনের ঘোষনা আসার পর মহাসড়কে যানবাহন বন্ধ হয়ে যায়। পরে গত ১জুন যান চলাচল মহাসড়কে চাঁদাবাজি ও তিন চাকার যান বন্ধে কঠোর অবস্থানে দোহাজারী হাইওয়ে পুলিশের মহাসড়কে চাঁদাবাজি ও তিন চাকার যান বন্ধে কঠোর অবস্থানে দোহাজারী হাইওয়ে পুলিশের আবার শুরু হলে মহাসড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে তৎপরতা শুরু করে হাইওয়ে পুলিশ।
এরই অংশ হিসেবে দেশের অন্যন্য স্থানের ন্যায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে চাঁদাবাজি ও টোকেন বানিজ্য বন্ধ সহ  পণ্যবাহী যানবাহন গুলোর নির্বিঘ্নে চলাচল ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে গণপরিবহণ চলাচলের নানামুখী প্রদক্ষেপ নিয়েছে দোহাজারী হাইওয়ে পুলিশ।  এর অংশ হিসেবে বিভিন্ন স্থানে প্রতিদিন মাইকিং করে এবং মালিক শ্রমিকদের সাথে মত-বিনিময় সভায় মিলিত হচ্ছেন তারা।
পাশাপাশি সিএনজি চালিত অটোরিকশা থ্রি-হুইলার বন্ধ ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রীদের চলাচলের জন্য বিতরণ করা হচ্ছে সচেতনতা মূলক লিফলেট। এছাড়াও মাক্স ও হ্যান্ডস্যানিটাইজার বিতরণ সহ চালকদের মাঝে স্বাস্থ্য সচেতন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।
অামিরাবাদ থেকে চট্টগ্রামগামী বাসযাত্রী আব্বাস উদ্দিন ও সাইফুল্লাহ বলেন গণপরিবহণে স্বাস্থ্যবিধির অজুহাতে ভাড়া বৃদ্ধির ফলে যাত্রীদের মাঝে কিছুটা অসন্তোষ অতিতে থাকলেও হাইওয়ে পুলিশের তৎপরতায় তা এখন বন্ধ হয়েগেছে। ফলে আমরা প্রতিদিন বাসে যাতায়াতকারীরা অনেক খুশি।
নিরাপদ সড়ক চাই-লোহাগাড়া শাখার আহবায়ক মোজাহিদ হোসাইন সাগর দোহাজারী হাইওয়ে পুলিশের এমন কর্মকান্ডকে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, সড়কে সম্পুর্নরুপে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে না আসা পর্যন্ত এধরনের কর্মকান্ড চালিয়ে যেতে হবে। সড়কের শৃঙ্খলা ফেরাতে হাইওয়ে পুলিশের যেকোন কর্মকান্ডে প্রয়োজনে নিরাপদ সড়ক চাই লোহাগাড়া শাখার সদস্যরা স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে সহযোগীতা করে যাবে।
আরকান সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি আরব আলী বাঁচা ও দোহাজারী ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আবু তৈয়ব বলেন, দোহাজারী হাইওয়ে থানার ওসির পরামর্শে ও করোনা পরিস্থিতিতে আমরা মহাসড়কে গাড়ী থেকে চাঁদা আদায় করছিনা। এছাড়া সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে পুলিশকে প্রতিনিয়ত সহায়তা করে যাচ্ছি।
এব্যাপারে দোহাজারী হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ ইয়াছির আরফাত বলেন, মাননীয় অতিরিক্ত আইজিপি ও পুলিশ সুপার মহোদয়ের নির্দেশক্রমে মহাসড়কে সকল প্রকার চাঁদাবাজি বন্ধ  স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ ও শৃঙ্খলা ফেরাতে সর্বাত্মক চেষ্টার পাশাপাশি কঠোর অবস্থানে থাকবে হাইওয়ে পুলিশ।
তিনি আরো বলেন, সড়ক পরিবহণ আইন ২০১৮ মোতাবেক  মহাসড়কে থ্রি-হুইলার চলাচল সম্পুর্ন নিষেধ। সড়ক পরিবহণ আইন ২০১৮ এর ৪৬ধারা এর উপ-ধারা (৪) মোতাবেক নিষিদ্ধ ঘোষিত নসিমন, করিমন ভডভডি, ইজিবাইক, মটরচালিত রিক্সা, ভ্যান বা অনুরোপ শ্রেণীর থ্রি-হুইলার বা সরকার কর্তৃক নিষিদ্ধ যেকোন যানবাহনকে (৪৬)ধারা বিধি লঙ্ঘন করলে ধারা (৮৯)এ তিন মাস জেল অথবা বিশ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।