মঙ্গলবার, ৪ঠা আগস্ট, ২০২০ ইং

চরফ্যাশনে সেতুর সংযোগ সড়কে ধস

প্রকাশিত: ৪:৫২ অপরাহ্ণ , জুলাই ৯, ২০২০

চরফ্যাশনে সেতুর সংযোগ সড়কে ধস

চরফ্যাশন(ভোলা)প্রতিনিধিঃ চরফ্যাশন উপজেলা আসলামপুর এলাকার ঠেলাখালীর খালের উপর সেতুর সংযোগ উত্তর পাশের সড়কে ধস দেখা দিয়েছে। জনগুরুত্বপূর্ণ সেতুর সংযোগ সড়কটি ধসের পর দীর্ঘদিন যাতায়াত প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। অবশেষে স্থানীয়া আসলামপুর ইউপি চেয়ারম্যান একে.এম সিরাজুল ইসলাম ব্যক্তিগত অর্থায়নে খতস্থানে ইট ও বালূদিয়ে ভরাট করে যাতায়াতের ব্যবস্থা করে দিয়েছে।

স্থানীয় ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা শাহাবুদ্দিন লাল্টু কালের কন্ঠকে বলেন, এই ঠেলাখালির সেতুর দুই পাশের কোন রকম মাটি পালাইয়া উপরদিয়ে ইট ভিছিয়ে দিয়েছে। ভাড়ি যানবাহন চলাচলা তো করতে পারেনা। বিক্সসা ও দীর্ঘ দিন চলাচল বন্ধ ছিল। এখন স্থানীয় চেয়ারম্যান ইট ও বালি দিয়ে ভরাট করে দেয়ায় যাতায়াত করতে পারছে।তার পরেও যেকোন সময় দুর্ঘটনার আশস্কা করেছেন এলাকাবাসী।

জানা যায়, ভোলা ৪(চরফ্যাশন-মনপুরা) আসনের এমপি সাবেক পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী আবদুল্লা আল ইসলাম জ্যাকব গুরুত্বপূর্ণ দেখে ঠেলাখালীর খালের উপর দ্রুত সেতু নিমার্ণের বরাদ্দ করেন। অবশেষে বিশিষ্ট্য ঠিকাদার আবদুল্লাহ আল মামুন দীর্ঘ বছর কাটিয়ে দুর্ভোগ দিয়ে সেতুটি নির্মাণ করেন। তরিৎ গতিতে করতে উদ্ধোধন করতে গিয়ে সেতুর গোড়া কোন রকম

মাটি দিয়ে পাশে পাইলিং না করে ইটবসিয়ে উদ্ধোধন করেছেন। বছর খানেক যেতে না যেতে সেতুর উপরে ঢালাই উঠে গেছে। সেতুর সংযোগ উত্তর পাশে সড়ক ডেবে জন দুর্ভোগ হচ্ছে। সেতুটি উত্তর পাশে আবুগঞ্জ বাজার দক্ষিণে ঢাকা যাতায়াত কারী বেতুয়া লঞ্চঘাট। ওই ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, বরাদ্দ ছাড়াই স্থানীয় সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব আমাকে সেতুটির সংযোগ সড়কটি করে দিতে। তাই আমি মানুষের দুর্ভোগ দেখে দ্রুত এই বর্ষার মধ্যেই মজবুত করে মেরামত করে দিয়েছি।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।