১৭, আগস্ট, ২০১৯, শনিবার | | ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

এবার কি তবে ভাগ্যটা পরিবর্তন করতে পারবেন লিওনেল মেসি?

প্রকাশিত: ২:৫১ অপরাহ্ণ , জুন ১৫, ২০১৯

এবার কি তবে ভাগ্যটা পরিবর্তন করতে পারবেন লিওনেল মেসি?

এবার কি তবে ভাগ্যটা পরিবর্তন করতে পারবেন লিওনেল মেসি? ক্যারিয়ারজুড়ে তার মত উচ্চতায় আর কোনো ফুটবলার পৌঁছাতে পেরেছে কি না সন্দেহ। এমনকি জনপ্রিয়তার জায়গায় পেলে-ম্যারাডোনাকেও কখনও কখনও ছাড়িয়ে গেছেন লিওনেল মেসি। কিন্তু একটাই অপূর্ণতা তার, আন্তর্জাতিক ফুটবলে একটিও শিরোপার স্পর্শ পেলেন না পৃথিবী নামক গ্রহের এই সেরা ফুটবলারটি। একটি বিশ্বকাপ এবং টানা দুটি কোপা আমেরিকার ফাইনাল খেলেছেন লিওনেল মেসি এবং তার দল আর্জেন্টিনা। কিন্তু, দুর্ভাগ্য এতটাই বেশি যে, টানা তিনটি ফাইনালেও শিরোপার ছোঁয়া পর্যন্ত পেলো না লা আলবিসেলেস্তারা। সেই আক্ষেপ কিংবা ভাগ্য পরিবর্তনের আরো একটি সুযোগ পাচ্ছেন মেসি এবং আর্জেন্টিনা। আরও একটি কোপা আমেরিকা মিশন শুরু করতে যাচ্ছে তারা। যদিও শুরুতেই কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বীতার মুখোমুখি আকাশী-সাদা জার্সিধারীরা। কারণ, প্রথম ম্যাচেই মেসিদের প্রতিপক্ষ আরেক শক্তিশালী দল কলম্বিয়া। কোপা আমেরিকা শুরু হয়ে গেছে শুক্রবার রাত থেকেই। প্রথমদিনই মাঠে নেমেছে শিরোপার অন্যতম প্রত্যাশী দল এবং স্বাগতিক ব্রাজিল। প্রথমদিনই তারা ৩-০ গোলে হারিয়েছে ভলিবিয়াকে। ব্রাজিলের জয়ের চেয়েও বেশি আলোচনা যেন নেইমারকে নিয়ে। ইনজুরির কারণে এবারের কোপা আমেরিকা খেলতে পারছেন না নেইমার।

নেইমারের পর কোপায় সবচেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে লিওনেল মেসিকে নিয়ে। আলোচনা একটাই, এবার কি তিনি পারবেন দেশকে ট্রফি উপহার দিতে? সেই যে ১৯৯৩ সালে সর্বশেষ কোপা আমেরিকা জিতেছিল, এরপর থেকে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ট্রফিবিহীন আর্জেন্টিনা। ২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেও অতিরিক্ত সময়ে শেষ মুহূর্তের গোলে জার্মানির কাছে হারতে হয়েছিল তাদের। ২০১৫ এবং ২০১৬- টানা দুই কোপার ফাইনাল খেলেছে মেসির দল। দু’বারই টাইব্রেকারে তারা হেরেছে চিলির কাছে। এমনকি ২০১৬ সালের কোপার ফাইনালে টাইব্রেকারে মেসি নিজেও শট মিস করেছিলেন। বিশ্বজয়ী ব্রাজিল দলের সদস্য রবার্তো কার্লোস সম্প্রতি এক নিবন্ধে লিখেছেন, ‘মেসির জন্য আমার দুঃখ হয়। ক্লাবের হয়ে সবকিছু পেলেও দেশকে এখনও কিছু দিতে পারেনি। বুঝতে পারছি, মেসির কাছে তা যন্ত্রণার। মেসি কোপাতে চ্যাম্পিয়ন হলে আমি খুশিই হব।’ এবার মেসিদের কোচ লিওনেল স্কোলানি। গত বিশ্বকাপের পর তাকেই ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। সেই ভারপ্রাপ্ত কোচের অধীনে সর্বশেষ এক বছরে খারাপ খেলেনি আলবিসেলেস্তারা। কোপা আমেরিকায় তারা কি করবে সেটাই এখন দেখার বিষয়। অন্যদিকে কলম্বিয়ার নতুন কোচ কার্লোস কুইরোজ। দলে রয়েছে একঝাঁক তারকা ফুটবলার। রাদামেল ফ্যালকাও, হামেস রদ্রিগেজ, হুয়ান কুয়ার্দাদো। যারা বিশ্বের যে কোনো ফুটবল দলেরই একাদশে ঠাঁই পাওয়ার যোগ্য। যে কোনো সময় ম্যাচের পরিস্থিতি পাল্টে দিতে সক্ষম। আর্জেন্টিনা কোচ লিওনেল স্কোলানি ঘোষণা দিয়েছেন, দেশকে কোপা আমেরিকা জেতাতে পারলে তিনি কোচিং থেকেই অবসর নিয়ে নেবেন। তিনি বলেন, ‘এই দলটি আগের দুই কোপা আমেরিকার ফাইনালে উঠেছিল। এবার শিরোপা জিততে না পারার কোনো কারণ দেখি না। এ বিষয়টা ভালোভাবে অনুধাবন করা জরুরি এবং এটাও জানা প্রয়োজন, কতটা কঠিন এমন একটি টুর্নামেন্টের ফাইনালে ওঠা। আমরা এখানে এসেছি প্রতিটি ম্যাচ খেলতে এবং দলের প্রতিটি সদস্যই এই জার্সিকে বিজয়ী করার জন্য খেলতে নামবে।’ মেসি সম্পর্কে আর্জেন্টিনা কোচের মন্তব্য, ‘আমি তার চাওয়া পরিপূর্ণ করতেই সর্বোচ্চ সহযোগিতা করে যাবো। সে জন্মই নিয়েছে ফুটবল খেলার জন্য। সে জন্মই নিয়েছে জয়ের জন্য। আমরা তার উদ্যমকে সম্মান জানাই। এখানে তার উপস্থিতি এবং অন্যদের সঙ্গে জয়ের মানসিকতা শেয়ার করা দলের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।