১৭, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, মঙ্গলবার | | ১৭ মুহররম ১৪৪১

স্বল্প পুঁজিতে দেশের সেরা সফল নারী

প্রকাশিত: ৩:৫৭ অপরাহ্ণ , জুলাই ১, ২০১৯

স্বল্প পুঁজিতে দেশের সেরা সফল নারী

দেশ, জাতি ও সমাজ বিনির্মাণে এখন পুরুষের পাশাপাশি সমানতালে এগিয়ে চলেছে নারীরাও। এরই ধারাবাহিকতায় কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর উপজেলায় পারুল আক্তার (৪০) দেশসেরা অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী পদকে ভূষিত হয়েছেন। মাত্র ৫০০ টাকা পুঁজি নিয়ে নার্সারির কাজ করে সংসার চালাতে শুরু করেন তিনি। নিজের দক্ষতা ও মেধা দিয়ে স্বাবলম্বী হওয়ার পাশাপাশি শতাধিক নারী-পুরুষকে আত্মনির্ভরশীল ও স্বাবলম্বী করে তুলেছেন।

ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়- এ প্রবাদবাক্য নিজের জীবনে যেমন বাস্তবায়ন করেছেন, তেমনি অন্যের জীবনের ভাগ্যের চাকাও বদলানের চেষ্টা করে যাচ্ছেন পারুল আক্তার। অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে তিনি আজ সফল উদ্যোক্তা।

প্রতিদিন এলাকার যুবক-যুবতীরা পারুল আক্তারের কাছে প্রশিক্ষণ নিতে আসছেন। তার কর্মকাণ্ডে মুগ্ধ হচ্ছেন সবাই। বাড়ছে তার নার্সারির চারাগাছের চাহিদা। গত ৯ মার্চ জাতীয় পর্যায়ে আত্মনির্ভরশীল নারী দিবসের সেমিনারে কর্মদক্ষতা পর্যবেক্ষণ ও আত্মনির্ভরশীল শ্রেষ্ঠ নারী হিসেবে পারুলকে স্বীকৃতি দেয় বাংলাদেশ সরকার এবং অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী দেশসেরা স্বীকৃতি ও জাতীয় পদক গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে।

২২ বছর আগে উপজেলার নবীপুর পূর্ব ইউনিয়নের বাখরনগর গ্রামের ইউনুছ মিয়ার মেয়ে পারুল বেগমের বিয়ে হয় একই গ্রামের কাউছার আলমের সঙ্গে। ছোট একটি কুঁড়েঘরে ছিল তার সংসার। বিয়ের দুই বছর পর কোলজুড়ে আসে একটি মেয়েসন্তান। বিয়ের পর স্বামী রিকশা চালাতেন। সংসারে আরও সন্তান আসে। রিকশা চালিয়ে ছেলেমেয়েদের দুবেলা খাওয়ানোর মতো আয় হতো না। অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ নেন পারুল। তাতেও তিন সন্তানসহ পাঁচজনের সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হতো। ছেলেমেয়েদের লেখাপড়ার খরচ জোগাতে পারতেন না।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।