২৩, আগস্ট, ২০১৯, শুক্রবার | | ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

প্রিয়া সাহার অভিযোগ সঠিক নয়, ধর্মীয় স্বাধীনতায় বাংলাদেশ দৃষ্টান্ত: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

প্রকাশিত: ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ , জুলাই ২০, ২০১৯

প্রিয়া সাহার অভিযোগ সঠিক নয়, ধর্মীয় স্বাধীনতায় বাংলাদেশ দৃষ্টান্ত: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার জানিয়েছেন, বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের অবস্থা নিয়ে প্রিয়া সাহা ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে যে অভিযোগ করেছেন তা সঠিক নয়। বাংলাদেশে যে ধর্মীয় স্বাধীনতা দেখেছি তা বিশ্বের জন্য দৃষ্টান্ত হতে পারে।

শুক্রবার রাজধানীর মেরুল বাড্ডায় বৌদ্ধ বিহার পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ সব কথা বলেন। পরে তিনি ঐতিহ্যবাহী বৌদ্ধ মন্দিরটি ঘুরে দেখেন এবং বৌদ্ধ ধর্মের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।তিনি বলেন, বাংলাদেশে আসার পর গত আট মাসে সবগুলো বিভাগ ঘুরে এবং প্রধান চার ধর্মের উপাসনালয়ে গিয়ে আমার ধারণা হয়েছে যে, ধর্মীয় স্বাধীনতার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি দেখিয়েছে। এটা আমার দেশের জন্য একটা শিক্ষণীয় বিষয়, পুরো বিশ্বের এখান থেকে শেখার আছে।

মার্কিন রাষ্ট্রদূত আরো বলেন, মসজিদ-মন্দির-গির্জা আর প্যাগোডা ঘুরে ইমাম, পুরোহিত-পাদ্রিদের কাছ থেকে একটি বার্তাই পেয়েছি, ঐক্যবদ্ধ না থাকলে কোনো দেশের পক্ষেই উন্নতি করা সম্ভব না।এরআগে গেল ১৬ জুলাই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ওভাল অফিসে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ধর্মীয় নির্যাতনের শিকার হয়েছেন, এমন কয়েক জনের সঙ্গে কথা বলেন।এতে ভাইরাল হওয়া সেই ভিডিওতে দেখা যায় এতে প্রিয়া সাহা ট্রাম্পের কাছে অভিযোগ করেন, স্যার, আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। আর এখানকার ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান গুম হয়ে গেছে। দয়া করে আমাদের, বাংলাদেশের জনগণকে সাহায্য করুন। আমরা আমাদের দেশে থাকতে চাই।

সেখানে তিনি আরও বলেন, এখনও এক কোটি ৮০ লাখ সংখ্যালঘু মানুষ আছে। আমাদের অনুরোধ দয়া করে আমাদেরকে সাহায্য করুন। আমরা আমাদের দেশ ছাড়তে চাই না। শুধু সাহায্য করুন প্রেসিডেন্ট।
ভিডিওতে দেখা যায় এক পর্যায়ে ট্রাম্প নিজেই সহানুভূতিশীলতার স্বরূপ এই নারীর সঙ্গে হাত মেলান।এসময় ট্রাম্প প্রশ্ন করেন, কারা জমি দখল করেছে, কারা বাড়ি-ঘর দখল করেছে? ট্রাম্পের ওই প্রশ্নের উত্তরে প্রিয়া সাহা বলেন, তারা মুসলিম মৌলবাদী গ্রুপ এবং তারা সব সময় রাজনৈতিক আশ্রয় পায়। সব সময়ই পায়।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রিয়া সাহার ওই অভিযোগের ভিডিও আসার পর তা নিয়ে শুরু হয় সমালোচনা। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহার করা অভিযোগের সঙ্গে বাস্তবতার কোনো মিল নেই।

 

সিএনআই/এসআই


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।