২৪, আগস্ট, ২০১৯, শনিবার | | ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

তাঁর জন্ম না হলে উপন্যাসের জন্মই হতো না

প্রকাশিত: ১১:২৯ পূর্বাহ্ণ , জুলাই ২২, ২০১৯

তাঁর জন্ম না হলে উপন্যাসের জন্মই হতো না

বাংলা সাহিত্যের প্রথম উপন্যাস নাম ‘আলালের ঘরের দুলাল’। এই উপন্যাসের স্রষ্টা প্যারীচাঁদ মিত্র। যাকে বলা হয় বাংলা সাহিত্যের প্রথম ঔপন্যাসিক। তিনি একাধারে ছিলেন লেখক, অনুবাদক, সাংবাদিক, সংস্কৃতিসেবী। তিনি টেকচাঁদ ঠাকুর নামেও ছিলেন পরিচিত। আজ এই মানুষটির জন্মদিন।

তিনি ১৮১৪ সালের ২২ জুলাই কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা ছিলেন রামনারায়ণ মিত্র। প্যারীচাঁদ মিত্রের শিক্ষাজীবন শুরু হয় পারিবারিক পরিমণ্ডলে। তিনি পণ্ডিত ও মুনশিরকাছ থেকে বাংলা ও ফারসি শেখেন। ১৮২৭ সালে তিনি হিন্দু কলেজে ভর্তি হন এবং খ্যাতিমান শিক্ষক হেনরি ডিরোজিওর তত্ত্বাবধানে থেকে শিক্ষা সম্পন্ন করেন।

প্যারীচাঁদ মিত্র কলকাতা পাবলিক লাইব্রেরির ডেপুটি লাইব্রেরিয়ান হিসেবে কর্মজীবন শুরু করলেও একটা সময় বিভিন্ন ধরনের ব্যবসার সাথে জড়িয়ে যান তিনি। তবে সমাজহিতৈষী ও সংস্কৃতিসেবী হিসেবে বাঙালির জাগরণে তার অবদান অবিস্মরণীয়।

সাহিত্যক্ষেত্রে প্যারীচাঁদের সর্বশ্রেষ্ঠ কৃতিত্ব আলালের ঘরের দুলাল। যা বাংলা সাহিত্যের প্রথম উপন্যাস হিসেবে খ্যাত। রচনারীতি ও ভাষাগত দিক থেকে এ উপন্যাস বাংলা সাহিত্যে নতুন ধারার সূচনা করে তিনি। এ উপন্যাসে প্যারীচাঁদ প্রথমবারের মতো বাংলা সাহিত্যের প্রচলিত গদ্যরীতির নিয়ম ভেঙ্গে চলিত ভাষারীতি প্রয়োগ করেন। সাধারণ মানুষের মুখে ব্যবহৃত কথ্য ভাষা আলালের ঘরের দুলাল উপন্যাসের এক বিশেষ বৈশিষ্ট্য। এছাড়াও তার রচনার ভিতর ‘মদ খাওয়া বড় দায় জাত থাকার কি উপায়’, ‘রামারঞ্জিকা’, ‘কৃষিপাঠ’, ‘ডেভিড হেয়ারের জীবনচরিত’, ‘বামাতোষিণী’, উল্লেখযোগ্য।

এই বহুমুখী প্রতিভাধর লেখক ১৮৮৩ সালের ২৩ নভেম্বর কলকাতায় মৃত্যুবরণ করেন।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।