২৩, আগস্ট, ২০১৯, শুক্রবার | | ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

বাংলাদেশ লঙ্কাওয়াশ

প্রকাশিত: ৯:৫৮ অপরাহ্ণ , জুলাই ৩১, ২০১৯

বাংলাদেশ লঙ্কাওয়াশ

টার্গেটটা বড় ছিল। আর গত দুই ম্যাচে বাংলাদেশ দলের ব্যাটসম্যানদের পারফরম্যান্সের বিচারে লঙ্কানদের ২৯৪ রান রীতিমতো পহাড়সম। নিজেদের বাজে ফর্ম কাটাতে পারলেন না টাইগাররা। ব্যর্থতার ষোলকলা পূর্ণ করে হোয়াইটওয়াশ হলো তামিমবাহিনী। সিরিজের শেষ ম্যাচে হারলো ১২২ রানের বড় ব্যবধানে।

ব্যর্থতার গোলকধাঁধা থেকে বের হয়ে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে পারলেন না তামিম ইকবাল। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই মাত্র ২ রানে বিদায় নেন তিনি। দীর্ঘদিন পর দলে ডাক পাওয়া এনামুল হক বিজয়ও ব্যর্থ হলেন। সৌম্য সরকার একপাশ আগলে লড়াই চালিয়ে গেলেও সঙ্গী পেলেন না। মুশফিক ১০ রানে বিদায় নেয়ার পর মিঠুন, মাহমুদুল্লাহ, সাব্বির, মিরাজরা কেউই দুই অঙ্ক স্পর্শ করতে পারলেন না।

চাপ সামলে সৌম্য মিরাকল কিছু করে দেখাতে পারলেন না। হাতছাড়া হয়ে যাওয়া ম্যাচে অন্তত সম্মানজনক স্কোর করার শেষ ভরসা সৌম্যকে ৬৯ রানে বোল্ড করেন ধনঞ্জয়া। এরপর তাইজুলের ব্যাট থেকে কিছু রান আসলেও তা বাংলাদেশকে বড় হারের লজ্জা থেকে বাঁচাতে পারেনি।

এর আগে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে বড় সংগ্রহ দাঁড় করায় শ্রীলঙ্কা। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৯৪ রান সংগ্রহ করে স্বাগতিকরা। ম্যাচের শুরু থেকে রানের চাকা বেশ টেনেই রেখেছিলেন টাইগার বোলাররা। কিন্তু শেষ দিকে দ্রুত রান তুলে নিয়ে বড় সংগ্রহ দাঁড় করিয়ে ফেলে লঙ্কানরা।
শুরুতেই আভিশকা ফার্নান্ডোকে তুলে নেন শফিউল ইসলাম। এরপর কুশাল পেরেরাকে সঙ্গে নিয়ে শুরুর চাপ কাটিয়ে উঠেন অধিনায়ক করুনারত্মে। তারা দুজন ফিরে যাওয়ার পর ইনিংসের সবচেয়ে বড় জুটি গড়েন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস এবং কুশাল মেন্ডিস। সৌম্য সরকারের শিকার হওয়ার আগে মেন্ডিস করেন ৫৪ রান। কিন্তু দাসুন সানাকার ১৪ বলে ৩০ রানের ঝড়ো ইনিংস চ্যালেঞ্জিং স্কোর দাঁড় করাতে সাহায্য করে শ্রীলঙ্কাকে। শেষ ওভারে সৌম্য বলে সাব্বিরের হাতে ক্যাচ দেয়ার আগে ম্যাথিউস খেলে যান কার্যকরী ৮৭ রানের ইনিংস।
বল হাতে ৩টি করে উইকেট তুলে নেন শফিউল ইসলাম এবং সৌম্য সরকার। অন্যদের বেহিসেবি রান খরচার দিনে সবচেয়ে কিপটে ছিলেন তাইজুল। ১০ ওভার বল করে ৩৪ রান দিয়ে তিন তুলে নেন ১টি উইকেট।
স্কোর:
শ্রীলঙ্কা ২৯৪/৮ (৫০)
আভিশকা ফার্নান্ডো ৬ (১৪)
দিমুথ করুনারত্নে ৪৬ (৬০)
কুশাল পেরেরা ৪২ (৫১)
অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস
দাসুন সানাকা ৩৪ (১৪)
শিহান জয়াসুরিয়া ১৩ (৭)
ওয়ানিডু হাসারাঙ্গা ১২* (৫)
আকিলা ধনঞ্জয়া ০ (১)
কুশান রাজিথা ০* (০)

বোলার
শফিউল ইসলাম ১০-০-৬৮-৩
রুবেল হোসেন ৯-১-৫৫-১
তাইজুল ইসলাম ১০-১-৩৪-১
মেহেদী হাসান মিরাজ ৯-০-৫৯-০
সৌম্য সরকার ৯-০-৫৬-৩
মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৩-০-২২-০

বাংলাদেশ ১৭২/১০ (৩৬)
এনামুল হক ১৪ (২৪)
তামিম ইকবাল ২ (৬)
সৌম্য সরকার ৬৯ (৮৬)
মুশফিকুর রহিম ১০ (১৫)
মোহাম্মদ মিঠুন ৪ (১১)
মাহমুদুল্লাহ ৯ (১২)
সাব্বির রহমান ৭ (১৭)
মেহেদী হাসান ৮ (৬)
তাইজুল ইসলাম ৩৯* (২৮)
শফিউল ইসলাম ১ (৫)
রুবেল হোসেন ২ (৬)

বোলার
শিহান জয়াসুরিয়া ৬-০-৪০-৬
কাসুন রাজিথা ৫-০-১৭-২
আকিলা ধনঞ্জয়া ১০-০-৪৪-১
দাসুন সানাকা ৬-০-২৭-৩
ওয়ানিডু হাসারাঙ্গা ৪-১-১৬-১
লাহিরু কুমারা ৫-০-২৬-২


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।