২৪, আগস্ট, ২০১৯, শনিবার | | ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

সিনিয়র ক্রিকেটারদের অপছন্দের কারণেই শর্টলিস্টে নেই হাথুরুর নাম!

প্রকাশিত: ১০:০৭ অপরাহ্ণ , আগস্ট ৮, ২০১৯

সিনিয়র ক্রিকেটারদের অপছন্দের কারণেই শর্টলিস্টে নেই হাথুরুর নাম!

যে কোন ইস্যুতেই বাংলাদেশে গুজব-গুঞ্জন ডালপালা ছড়ায়। এই যেমন ঈদের আগে হঠাৎ প্রধান কোচ নিয়ে কত কথা! যদিও বিসিবি কোচ নিয়োগে অনেক গোপনীয়তা অবলম্বন করছে। পরিচালকদের কেউই কোন নাম-ধাম প্রকাশে অনেক বেশি সতর্ক, সাবধানি।

বিসিবির শীর্ষ পরিচালকদের অন্যতম মাহবুব আনাম, জালাল ইউনুস কিংবা আকরাম খানের মত ব্যক্তিরাও মুখে তালা দিয়ে বসে আছেন। আজ সন্ধ্যা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত আলাপে কেউ একটি নামও পৃথকভাবে উচ্চারণ করেননি।

তবে তাদের সাথে কথা বলে একটা বিষয় আবার নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাহলো, বিসিবির শর্ট লিস্ট বা বিবেচনায় নেই সদ্য শ্রীলঙ্কা দল থেকে বিতাড়িত এবং বাংলাদেশের সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের নাম।

বলার অপেক্ষা রাখে না, কাল সন্ধ্যায় বেক্সিমকো অফিসে সাংবাদিকদের সাথে আলাপে বিসিবি মিডিয়া কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস জানিয়েছিলেন, ‘তাদের শর্টলিস্টে আছেন তিনজন। সেখানে একজন উপমহাদেশীয়ও নেই। যার একজন রাসেল ডোমিঙ্গো। আর দু’জন অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের।’

ধারনা করা হচ্ছে, মাইক হেসনের ইঙ্গিত করেছিলেন জালাল। বিসিবির মিডিয়া কমিটি প্রধান তার নাম না বললেও কেউ কেউ তৃতীয় অপশন হিসেবে হাথুরুসিংহের কথা ভেবে বসে আছেন।

কিন্তু আজ মাহবুব আনাম প্রায় না করেই দিলেন। কথা-বার্তায় সতর্ক-সাবধানি মাহবুব আনাম এমনিতেই মিডিয়ার সাথে কথা বলেন মেপে। আজ বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় আলাপেও সেই চিরচেনা মাহবুব আনাম। একটি নাম প্রকাশেও রাজ্যের অপারগতা।

তবে কথা বার্তার এক পর্যায়ে বলে দিলেন হাথুরুসিংহে নেই বিসিবির পছন্দের তালিকায়। বলার অপেক্ষা রাখে না মাহবুব আনামের সাথে সেই অর্জুনা রানাতুঙ্গা, অরবিন্দ ডি সিলভা, রোশন মহানামা, সনাৎ জয়সুরিয়া থেকে শুরু করে মুত্তিয়া মুরলিধরন, মাহেলা জয়বর্ধনে কিংবা কুমারা সাঙ্গাকারার মত লঙ্কান ক্রিকেট গ্রেটদের নিবিড় সম্পর্ক।

ব্যবসায়িক কারণ ও ক্রিকেটীয় সম্পর্কে শ্রীলঙ্কার সাথে মাহবুব আনামের সখ্য-যোগাযোগও অনেক। বাংলাদেশে গত এক যুগের বেশি সময়ে যত লঙ্কান বিসিবিতে কাজ করেছেন, তারা সবাই মাহবুব আনামের হাত ধরেই এসেছেন। সেই মাহবুব আনাম যখন বলেন, ‘নাহ! এখন আর হাথুরুর কোচ হবার সম্ভাবনা নেই। তাকে আনা মানে আবার পিছন ফিরে তাকানো।’ তখন, নিশ্চিত, হাথুরুর আর বাংলাদেশের কোচ হওয়রা সম্ভাবনা নেই।

এদিকে ভেতরের খবর, ‘জাতীয় দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের সাথে সম্পর্কর টানাপোড়েন আর তাদের আপত্তির মুখেই আসলে বিসিবি হাথুরুর ওপর থেকে দৃষ্টি সরিয়ে নিয়েছে।’

একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, ‘জাতীয় দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের কেউই হাথুরুকে সেভাবে পছন্দ করেন না। বাংলাদেশের কোচ থাকাকালে সময় যত গড়িয়েছে, হাথুরুর সাথে ক্রিকেটারদের বনিবনা ভাল ছিল না এবং দায়িত্ব ছেড়ে বিদেশের মাটিতে বসে হাথুরু বাংলাদেশের সিনিয়র ক্রিকেটারদের আচরণ নিয়ে নানা সমালোচনাও করেছিলেন। কারো কারো কমিটমেন্ট নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিলেন এ সাবেক কোচ।’

যা মোটেই ভালভাবে নেয়নি সিনিয়ররা। নেবার কথাও নয়। এখন তাকে আবার দায়িত্ব দেয়া হলে সেই সিনিয়র ক্রিকেটারদের সাথেই কাজ করতে হবে। এতে করে একটা অঘোষিত দ্বন্দ্ব ও সংঘাত তৈরি হতে পারে। যা দলের উপকারের বদলে অপকারই করবে। টিম স্পিরিট ভাঙ্গবে। আভ্যন্তরিন কোন্দলও সৃষ্টি হতে পারে। সেই চিন্তা থেকেই আসলে বিসিবি হাথুরুর ওপর উৎসাহ হারিয়ে ফেলেছে।

তবে শেষ খবর হলো, ঈদের ছুটির পর আগস্টের তৃতীয় সপ্তাহের মধ্যেই কোচ নির্বাচন প্রক্রিয়া সেরে ফেলতে চাচ্ছে বিসিবি। মাহবুব আনাম তেমনটাই জানালেন, ‘যেহেতু আগস্টের তৃতীয় সপ্তাহে আমাদের আফগানিস্তানের সাথে টেস্ট এবং জিম্বাবুয়ে ও আফগানিস্তানের সাথে তিন জাতি টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রস্তুতি শুরু হচ্ছে, তার আগেই প্রধান কোচ চূড়ান্ত করাও খুব দরকার। আশা করছি তা হয়েও যাবে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।