১৯, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ১৯ মুহররম ১৪৪১

‘সে আমাকে দেখিয়েই দিল’

প্রকাশিত: ৫:০৮ অপরাহ্ণ , আগস্ট ৩০, ২০১৯

‘সে আমাকে দেখিয়েই দিল’

বিয়ে করেছিলাম ৩০ বছর আগে। বনিবনা হচ্ছিল না বিধায় ১০ বছর আগে আমাদের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। বিয়ের আগে ঝগড়া হলে আমি তাকে বলতাম, তোমাকে বিয়ে করবে কে? সেও বলতো, আমাকে কেউ বিয়ে করবে না? আমি দেখিয়ে দেব? অবশেষে দেখিয়েই দিল সে। আমাদের ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর আমি বিয়ে না করলেও সে বিয়ে করেছে।

এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন নিজাম হোসেন (ছদ্মনাম)। যিনি রাজধানীর মোহাম্মদপুরে ফুটপাতে চটপটির ব্যবসা করেন।

নিজাম হোসেন বলেন, বিয়ের পর সুখের সংসারই ছিল আমাদের। দুই সন্তান নিয়ে ভালোই দিন কাটছিল। পরে বনিবনা না হওয়াতে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

তিনি বলেন, দুই সন্তানের মধ্যে এক সন্তান আমার কাছে থাকে। আরেক সন্তান তার মায়ের কাছে থাকে। ওই সন্তান আমার কাছেও মাঝেমধ্যে আসে।

নিজাম বলেন, ছাড়াছাড়ি হয়ে গেলেও আমার জন্য এখনও তার অনেক টান। আমার কি খাবার পছন্দ তা সে জানে। ছেলেকে দিয়ে সেসব খাবার পাঠায়।

তিনি বলেন, তাদের গাছে ১৬টা কাঠাল ধরেছিল। এরমধ্যে ৮টা কাঁঠালই আমার জন্য পাঠিয়েছে। কারণ সে জানে, আমি কাঁঠাল খুব পছন্দ করি।

তিনি বলেন, কিছুদিন আগে আমার মা মারা গিয়েছিল। মায়ের মৃত্যুর পর আমার হাত একেবারে খালি হয়ে যায়। তখন আমাকে বলল, ১৫ হাজার টাকা দিচ্ছি। এগুলো দিয়ে সবকিছু মিটাও।

নিজাম উদ্দিন বলেন, বড় ছেলেই তার মায়ের ওখানে থাকে। বড় ছেলেকে বিয়ে করিয়েছি। তাদের ঘরে এক সন্তানও আছে। আমার নাতি। সে মাঝেমধ্যে আমার এখানে আসে। আমি চকলেট কিনে দেই। নাতিকে দেখলে মনটা জুড়িয়ে যায়।

তিনি আরও বলেন, আমার বয়স হয়ে যাচ্ছে। তবুও নিজের উপার্জিত টাকা দিয়ে নিজে চলি। কারো কাছে হাত পাতি না। ছেলেদের থেকেও কোনো টাকা নেই না। বরং তাদেরকে টাকা দেই।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।