১৯, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ১৯ মুহররম ১৪৪১

দুঃসংবাদ থাকছে যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য!

প্রকাশিত: ১২:১৩ অপরাহ্ণ , সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৯

দুঃসংবাদ থাকছে যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য!

চলতি বছরে হঠাৎ করেই দেশের ৩৬ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নজরদারির আওতায় নিচ্ছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বর্তমান সরকারের ইশতেহার বাস্তবায়নে এমন পদক্ষেপ হাতে নিতে যাচ্ছে সরকারের এই প্রতিষ্ঠানটি। এখন থেকে প্রতিবছর এসব প্রতিষ্ঠানের আমলনামা সংগ্রহ করবে পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদফতর।

কর্মপরিকল্পনায় দেখা গেছে, শিক্ষার মানোন্নয়নে জবাবদিহিতামূলক শিক্ষা প্রশাসন তৈরির কাজ শুরু করা হয়েছে। এ লক্ষ্যে প্রতি বছর দেশের সরকারি-বেসরকারি ৩৬ হাজার ৭০০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করা হবে। নিয়মিত পরিদর্শন, নিরীক্ষা ও অভিযোগ তদন্ত করে এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রতিবেদন পাঠানো হবে। একই সঙ্গে এর মাধ্যমে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রকৃত অবস্থা যাচাই করা হবে।

জানা গেছে, বর্তমান সরকারের শিক্ষাখাতে নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নে কাজ শুরু করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এ সংক্রান্ত একাধিক সভা হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসেনের উপস্থিতিতে এসব সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় শিক্ষাখাতের সব বিভাগকে কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করতে বলা হয়। আগামী ৮ অক্টোবর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে শিক্ষামন্ত্রীর সভাপতিত্বে এ সংক্রান্ত আরও একটি সভায় সব কর্মপরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হবে।

কর্মকর্তারা বলেন, বিদ্যালয় তদন্ত ও পরিদর্শনে ডিআইএ একটি অটোমেশন সফটওয়্যার তৈরি করা হবে। এর মাধ্যমে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিদর্শন ও নিরীক্ষা কার্যক্রম সহজীকরণসহ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা হবে। এ জন্য ডিআইএর জনবল বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে ৩৫ জন কর্মকর্তার নিয়োগ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। পাশাপাশি ডিআইএর কর্মকর্তা ও দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানদের নিয়মিত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে।

এ বিষয়ে ডিআইএর পরিচালক অধ্যাপক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, স্বচ্ছ জবাবদিহিতামূলক শিক্ষা প্রশাসন তৈরিতে একটি পরিকল্পনা তৈরি করেছি। এর মাধ্যমে প্রতিবছর দেশের সব সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মনিটরিং করা হবে। এ জন্য ডিআইএতে জনবল বাড়ানো হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের কর্মপরিকল্পনাটি অনুমোদন করলে আগামী বছর তা বাস্তবায়ন করা হবে। এ জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠান প্রধানদের বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।