১৬, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, সোমবার | | ১৬ মুহররম ১৪৪১

অ্যাপসের মাধ্যমে তথ্য নিবন্ধন করা যাবে : ডিএমপি কমিশনার

প্রকাশিত: ২:১৯ অপরাহ্ণ , সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৯

অ্যাপসের মাধ্যমে তথ্য নিবন্ধন করা যাবে  : ডিএমপি কমিশনার

ডেস্ক রিপোর্ট: ঢাকা মহানগরীতে বাড়িওয়ালা ও ভাড়াটিয়া তথ্য সংগ্রহ প্রক্রিয়া আরো সহজ, নির্ভূল ও দ্রুত করার লক্ষ্যে Citizen Information Management System (CIMS) মোবাইল অ্যাপস এর উদ্বোধন করলেন ডিএমপি কমিশনার মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া বিপিএম (বার), পিপিএম।

আজ (৯ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আনুষ্ঠানিকভাবে CIMS মোবাইল অ্যাপস এর উদ্বোধন করেন ডিএমপি কমিশনার। এসময় ডিএমপি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ও গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

CIMS মোবাইল অ্যাপস উদ্বোধনকালে কমিশনার বলেন, অপরাধ প্রতিরোধ ও প্রতিকারে পুলিশের দক্ষতা বৃদ্ধি করে সমাজ থেকে অপরাধ ভীতি দূর করা এবং জনসম্পৃক্ততা বৃদ্ধি করে পুলিশ ভীতি দূর করার লক্ষ্যে ২০১৫ সাল থেকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ এলাকায় শুরু হয় বিট পুলিশিং প্রথা। অপরাধ ব্যবস্থাপনার জন্য নানাবিধ তথ্য সংগ্রহের অংশ হিসেবে মহানগরে বসবাসরত নাগরিকের তথ্য সংগ্রহ, সংরক্ষণ এবং ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে ২০১৬ সাল থেকে শুরু হয় নাগরিক তথ্য সংগ্রহের কার্যক্রম। তথ্যে বহুবিধ ব্যবহার নিশ্চিতকল্পে প্রস্তুত করা হয় Citizen Information Management System বা CIMS, যার যাত্রা শুরু হয় ২০১৬ সালের ১ সেপ্টেম্বর। বর্তমানে CIMS এর তথ্য ভান্ডারে ৭২ লক্ষেরও অধিক নাগরিক তথ্য সংগৃহীত আছে। নাগরিক তথ্য সংরক্ষিত থাকার কারণে মামলার রহস্য উদঘাটনে যেমন সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, তেমনি অপরাধ প্রতিরোধে ডিএমপি’র দক্ষতা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

কমিশনার বলেন, বিশেষ করে তথ্য গোপন করে কিংবা ভুল তথ্য দিয়ে বাড়ি ভাড়া নেয়া প্রায় অসম্ভব বিধায় অপরাধী, সন্ত্রাসী ব্যক্তি বা গোষ্ঠী সহজে বাড়ি ভাড়া নিতে পারছে না। এজন্য আমরা সাধারণভাবে সম্মানিত নগরবাসি বিশেষ করে বাড়িওয়ালাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। তথ্য সংগ্রহের প্রক্রিয়াটি আমরা এ পর্যন্ত ম্যানুয়ালি করে আসছি। বিট অফিসারবৃন্দ বাড়ি বাড়ি গিয়ে নির্ধারিত ফরমে তথ্য সংগ্রহ করে থানায় সংরক্ষিত কম্পিউটারে ডাটা এন্ট্রি দিচ্ছেন। ফলে এ প্রক্রিয়া যথেষ্ট গতিশীল নয়। তাছাড়া বাড়িওয়ালা/ভাড়াটিয়াগণ এর উপস্থিতি সবসময় নিশ্চিত না থাকার কারণে প্রক্রিয়াটি বিলম্বিত হচ্ছে এবং অপচয় হচ্ছে কর্মঘন্টা। এমতাবস্থায় তথ্য সংগ্রহ প্রক্রিয়া ডিজিটাল করার লক্ষ্যে CIMS নামক একটি অ্যাপলিকেশন তৈরী করা হয়েছে। যার ফলে-তথ্য ডিজিটালি সংগ্রহ করা সম্ভব হবে, কর্মঘন্টা কমে আসবে এবং জনবলের সাশ্রয় হবে, ভুল তথ্য এন্ট্রি বা অসম্পূর্ন তথ্য এন্ট্রি দেয়া কমে আসবে, নগরবাসির সাথে সরাসরি যোগাযোগের দ্বার উন্মোচিত হবে ও বাড়িওয়ালা/ভাড়াটিয়ার Geo-Location সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

তিনি বলেন, CIMS মোবাইল অ্যাপসটি আজ (০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯) থেকে Google Play Store এ CIMS DMP লিখে সার্চ দিয়ে ডাউনলোড করা যাবে। কিছুদিন পর Apple Store থেকেও CIMS DMP লিখে সার্চ দিয়ে ডাউনলোড করা যাবে। মোবাইল অ্যাপস তৈরীর কাজে সহায়তা করার জন্য Thane System কে ধন্যবাদ জানাই। সেই সাথে এই অ্যাপস এর উদ্বোধন ঘোষণা করছি।

CIMS মোবাইল অ্যাপস উদ্বোধন করছেন ডিএমপি কমিশনার

এছাড়াও কমিশনার বলেন, নগরবাসীর তথ্য সংগ্রহ কার্যক্রম ডিজিটাল সংগ্রহের পাশাপাশি ম্যানুয়ালি তথ্য সংগ্রহ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। প্রত্যেক নগরবাসী যার যার তথ্য নিজে নির্ভূলভাবে এই অ্যাপসে নিবন্ধন করতে পারবেন।

যেভাবে CIMS মোবাইল অ্যাপসে নাগরিক তথ্য নিবন্ধন করা যাবে- প্রথমে Google Play Store এ গিয়ে CIMS DMP লিখে সার্চ দিয়ে অ্যাপসটি ডাউনলোড করতে হবে। তারপর login অপশনে নিজের ফোন নম্বর দিয়ে নিবন্ধনে ক্লিক করতে হবে। এরপর একটি ভেরিফিকেশন কোড আপনার প্রদত্ত মোবাইলে পাঠানো হবে। ভেরিফিকেশন কোড এ্যাকটিভ করে পাসওয়ার্ড সেট করে login করলে বিভিন্ন ক্যাটাগরি দেখতে পাবেন। এখান থেকে আপনার অপশনটিতে ক্লিক করলে একটি ফরম পাবেন।

CIMS মোবাইল অ্যাপস উদ্বোধন করছেন ডিএমপি কমিশনার

ফরমে প্রদত্ত ঘরে আপনার সকল তথ্য নির্ভূলভাবে পূরণ করে সাবমিট করলে আপনার কাজ শেষ। তবে এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার মোবাইলে ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে। আপনার পূরণকৃত তথ্য সেন্ট্রাল ডাটাবেজে যুক্ত হওয়ার আগে থানার অফিসার ইনচর্জ আপনার প্রদত্ত তথ্য যাচাই বাছাই করে সঠিক থাকলে এ্যাপ্রুভাল দিলে CIMS এর মূল ডাটাবেজে আপনার তথ্য যুক্ত হবে। আর যদি কোন কারণে আপনার ফরম পূরণ অসম্পূর্ণ হয় বা তথ্যে ভূল থাকে সেক্ষেত্রে আপনার মোবাইলে এসএমএস দিয়ে জানানো হবে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।