২৩, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, সোমবার | | ২৩ মুহররম ১৪৪১

পাকিস্তানকে ভারতের কড়া হুশিয়ারি

প্রকাশিত: ১:২২ অপরাহ্ণ , সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

পাকিস্তানকে ভারতের কড়া হুশিয়ারি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রাষ্ট্রপুঞ্জে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে জোরালো ভাষায় সরব হল ভারত। প্রতিবেশী দেশ বিকল্প কূটনীতি হিসেবে সীমান্ত পারে সন্ত্রাস চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করে দিল্লি। পাশাপাশি জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে সাম্প্রতিক সিদ্ধান্ত যে একেবারেই ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় এবং এ বিষয়ে কারও হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করাহবে না, তাও স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে।

জম্মু ও কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগের আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবিতে রাষ্ট্রপুঞ্চে সোচ্চার হয়েছিল পাকিস্তান। তার জবাবে বিদেশমন্ত্রকের সচিব (পূর্ব) বিজয় ঠাকুর বলেন, এই অভিযোগ মিথ্যে। আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের উপকেন্দ্র যে দেশ তারা এই অভিযোগ করছে বলে কটাক্ষ করেন তিনি।

জম্মু ও কাশ্মীর নিয়ে বিজয় বলেন, ‘সংসদে বিতর্কের পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে এবং এটি দারুণ সমর্থন পেয়েছে। টেলিভিশনে গোটা বিষয়টির সম্প্রচারও হয়েছে। এটা মনে করিয়ে দিতে চাইব যে সংসদে পাশ হওয়ায় অন্যান্য আইনের মতোই এটাও একেবারেই ভারতের অভ্যন্তরীণ সিদ্ধান্ত। কোনও দেশই তাদের নিজেদের বিষয়ে অন্য কারও নাক গলানো পছন্দ করে না। ভারতও তাই।’

কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারে কাশ্মীরবাসীর মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে নয়াদিল্লি, আন্তর্জাতিক মঞ্চে বার বার এটাই তুলে ধরার চেষ্টা করেছে পাকিস্তান। কিন্তু সেটা করতে গিয়ে মঙ্গলবার ‘সেমসাইড গোল’ করে বসেন পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি। মানবাধিকার হরণের কথা বলতে গিয়ে জম্মুর পাশাপাশি কাশ্মীরকেও ‘ভারতের রাজ্য’ হিসেবে স্বীকার করে নিলেন তিনি! সাংবাদিকদের সামনে কথাটি মুখ ফসকে বলে ফেললেও পাকিস্তানের অস্বস্তি কিছুটা বাড়িয়েছেন কুরেশি। ভারত অবশ্য এই ‘ভুল’কে হাতিয়ার না করে রাষ্ট্রপুঞ্জের মঞ্চে বলেছে, ‘যারা আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসের ভরকেন্দ্রে, তাদের মনগড়া অভিযোগের ব্যাপারে বিশ্ব ওয়াকিবহাল!’


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।