১৯, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ১৯ মুহররম ১৪৪১

জিম্বাবুয়ের কাছে হেরেই প্রস্তুতি সারলো বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ৪:২২ অপরাহ্ণ , সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

জিম্বাবুয়ের কাছে হেরেই প্রস্তুতি সারলো বাংলাদেশ

 

স্পোর্টস ডেস্ক : আফগানদের সাথে একমাত্র টেস্টে লজ্জাজনক হারের পর ত্রিদেশীয় সিরিজের মূল লড়াই শুরুর আগে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে বিসিবি একাদশের মুখোমুখি হয়েছিল জিম্বাবুয়ে। ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলি স্টেডিয়ামে ম্যাচটিতে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় বিসিবি একাদশ।

শফিকুর রহীম, সাব্বির রহমান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দীন, আরিফুল হকের মতো জাতীয় দলের তারকাদের নিয়েও জিম্বাবুয়ের কাছে পাত্তা পেল না বিসিবি একাদশ। ফতুল্লার খান সাহেব ওসমানী স্টেডিয়ামে টি-টোয়েন্টি প্রস্তুতি ম্যাচে বিসিবিকে ৭ উইকেট আর ১৬ বল হাতে রেখে হারিয়েছে হ্যামিল্টন মাসাদাকদজার দল।

টপ অর্ডারের প্রায় সব ব্যাটসম্যানই অবশ্য রান পেয়েছেন, কিন্তু আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্টের মতোই থিতু হয়ে আউট হয়েছেন তারা। বিসিবি একাদশের হয়ে ইনিংস উদ্বোধন করেন দুই প্রতিশ্রুতিশীল ওপেনার সাইফ হাসান আর নাইম শেখ। দুজনই ভালো শুরুর পর উইকেট বিলিয়ে দিয়েছেন।

১৯ বলে ২১ রান করেন সাইফ, নাইম করেন ১৪ বলে ২৩। তিন ও চারে খেলেছেন জাতীয় দলের দুই বড় তারকা সাব্বির রহমান আর মুশফিকুর রহীম। সাব্বির ৩১ বলে ১ ছক্কার সাহায্যে করেন মাত্র ৩০ রান। ২৬ বলে ২ বাউন্ডারিতে ২৬ রান আসে মুশফিকের উইলো থেকে।

এরপর আফিফ হোসেন ধ্রুব (৮ বলে ১০), ইয়াসির আলী (১০ বলে ৬), আরিফুল হক (৪ বলে ৯), মোহাম্মদ সাইফদ্দীনরাও (৭ বলে অপরাজিত ৭) টি-টোয়েন্টির আমেজটা দেখাতে পারেননি। ফলে ৭ উইকেটে ১৪২ রানেই থেমেছে বিসিবি একাদশের ইনিংস।

জিম্বাবুয়ের শন উইলিয়ামস ১৮ রানে নিয়েছেন ৩টি উইকেট। ২টি উইকেট শিকার নেভিলে মাদজিভার।

লক্ষ্য ১৪৩ রানের, টি-টোয়েন্টিতে বড় বলার উপায় নেই। বাংলাদেশি বোলারদের ব্যর্থতায় কাজটা যেন আরও সহজ হয়ে যায় জিম্বাবুয়ের। হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ২৩ বলে ৩১ করে আউট হলেও আরেক ওপেনার ব্রেন্ডন টেলর খেলেছেন দায়িত্ব নিয়ে। ৬৬ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর তিনিসেন মারুমাকে নিয়ে ম্যাচ জেতানো এক জুটিই গড়েছেন তিনি।

চতুর্থ উইকেটে তারা অবিচ্ছিন্ন থাকেন ৫৫ বলে ৭৮ রানে। টেলর ৪৪ বলে ৫৭ আর মারুমা ২৮ বলেই খেলেন ৪৬ রানের ঝড়ো এক ইনিংস।

বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে যা একটু সুবিধা করতে পেরেছেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। ৪ ওভারে ১৯ রান দিয়ে তিনি নেন ৩টি উইকেট। টি-টোয়েন্টি দলের চমক ইয়াসিন আরাফাত মিশু ২ ওভারেই দিয়েছেন ২২ রান, পাননি একটি উইকেটও।

ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচের বাংলাদেশ দলে থাকা চার ক্রিকেটারকে রাখা হয়েছে প্রস্তুতি ম্যাচের দলে। সাব্বির রহমান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের সাথে দুই তরুণ ক্রিকেটার আফিফ হোসেন ও ইয়াসিন আরাফাতকে ম্যাচ প্র্যাক্টিসে প্রস্তুত করে নিতেই রাখা হয়েছে এ ম্যাচের দলে।

জাতীয় দলে জায়গা পাওয়া এ চার ক্রিকেটারের সাথে একঝাঁক তরুণ ক্রিকেটারের সমন্বয়ে সাজানো হয়েছে বিসিবি একাদশ। দলে রয়েছেন ওপেনার সাইফ হাসান ও নাইম শেখ। তাছাড়া দলে রাখা হয়েছে আরিফুল হক, ইয়াসির আলি রাব্বিদের। বিশেষজ্ঞ কোনো স্পিনার না থাকলেও দলে রাখা হয়েছে চার পেসার। সাইফউদ্দিন-ইয়াসিনদের সাথে প্রস্তুতি ম্যাচে পেস আক্রমণ সামলানোর দায়িত্ব থাকছে সুমন খান ও শফিকুল ইসলামদের কাঁধে।

জিম্বাবুয়ে দল: হ্যামিল্টন মাসাকাদজা (অধিনায়ক), রেজিস চাকাভা, রিচমন্ড মুতুম্বানি, শন উইলিয়ামস, নেভিল মাদজিভা, টিনোটেন্ডা মুতোম্বদজি, টনি টনি মুনিয়োঙ্গা, কাইল জার্ভিস, টেন্ডাই চাতারা, ক্রিস্টফার এমপফু, ক্রেইগ আরভিন, ব্রেন্ডন টেলর, এন্সেলে এন্ডলভ, টিমিসেন মারুমা, রায়ান বার্ল।

প্রস্তুতি ম্যাচের বিসিবি একাদশ: সাইফ হাসান, নাইম শেখ, সাব্বির রহমান, আফিফ হোসেন, ইয়াসির আলী, সাব্বির হোসেন, আরিফুল হক, সুমন খান, ইয়াসিন আরাফাত মিশু, শফিকুল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম, জাকের আলী (উইকেটরক্ষক), মোহাম্মদ সাইফউদ্দীন।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।