১৬, অক্টোবর, ২০১৯, বুধবার | | ১৬ সফর ১৪৪১

বাল্যবিয়ে করতে এসে কারাদণ্ডে দণ্ডিত বর

প্রকাশিত: ১১:৩০ পূর্বাহ্ণ , অক্টোবর ৫, ২০১৯

বাল্যবিয়ে করতে এসে কারাদণ্ডে দণ্ডিত বর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ইউএনওর হস্তক্ষেপে শিফা আক্তার (১৩) নামে এক ছাত্রী বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। শুক্রবার (৪ অক্টোবর) দুপুরে সদর উপজেলার নাটাই (দ.) ইউনিয়নের পশ্চিম ভাটপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সদর ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পঙ্কজ বড়ুয়ার নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত কনের বাড়িতে গিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করেন ও বরকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পাওয়া শিফা আক্তার স্থানীয় আজিজিয়া দারুল কোরআন মহিলা মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ও সদর উপজেলার নাটাই (দ.) ইউনিয়নের পশ্চিম ভাটপাড়া এলাকার মো. হাবিবুর রহমানের মেয়ে।

সদর ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পঙ্কজ বড়ুয়া জানান, অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী শিফা আক্তারের সঙ্গে একই এলাকার আমিনুল ইসলামের ছেলে মো. দ্বীন ইসলামের (২৫) আজ (৪ অক্টোবর) দুপুরে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিয়ের কথা জানতে পেরে ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই বাড়িতে উপস্থিত হয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে।  এছাড়াও অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েকে বিয়ে করার দায়ে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর ৭(১) ধারায় বর মো. দ্বীন ইসলামকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। মেয়ে প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না মর্মে মেয়ের মায়ের কাছ থেকে মুচলেকা আদায় করা হয়েছে। বাল্য বিয়ের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।