১৬, অক্টোবর, ২০১৯, বুধবার | | ১৬ সফর ১৪৪১

ভোটারের জন্য হাহাকার করছে ভোটকেন্দ্র!

প্রকাশিত: ২:১১ অপরাহ্ণ , অক্টোবর ৫, ২০১৯

ভোটারের জন্য হাহাকার করছে ভোটকেন্দ্র!

রংপুর প্রতিনিধিঃ রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচনের ভোট গ্রহণ সকাল ৯ টায় শুরু হলেও ভোটারের উপস্থিতি চোখে পড়ছে কম। কেন্দ্রগুলো ঘুরে দেখা গেলো দুপুর ১ টা পর্যন্ত কোন কোন কেন্দ্রে ভোট পড়েছে ২ থেকে ৩’শ।

এদিকে বেলা ১২ টায় লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজের প্রিজাইডিং অফিসার মোহাম্মদ আশরাফ জানান, এই ভোট কেন্দ্রে ২ হাজার ৮১৩ টি ভোট রয়েছে। এরমধ্যে বেলা ১২ টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে মাত্র ৭৮টি। কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের প্রিজাইডিং অফিসার ফেরদৌস আলম জানান, মোট ১ হাজার ৭৩৮ ভোটের মধ্যে বেলা ১১ টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ৬১টি।

এবং সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল নগন্য।

কেরামতিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার আজহারুল ইসলাম জানান, তার কেন্দ্রে ভোট সংখ্যা ৩ হাজার ৬৪৯টি। এর মধ্যে বেলা সোয়া বারোটা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ২৫০ টি ভোট পড়েছে। নিসবেতগঞ্জ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের আনোয়ার আল সাদাত মোল্লা জানান, তার কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ৩ হাজার ১৭। এর মধ্যে বেলা ১২ টা ১০ মিনিট পর্যন্ত ভোট পড়েছে ২১৭ টি ।এ ব্যাপারে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিন জানান, শহর এলাকায় ভোটার উপস্থিতি কম থাকলেও ইউনিয়নগুলোতে ভোটার উপস্থিতি বেশী আছে। দুপুরের আরও বেশী ভোটার উপস্থিত হবেন।

এদিকে নির্বাচনে নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা পক্ষপাতিত্ব করছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রিটা রহমান। শনিবার সকাল নয়টায় ভোটগ্রহণ শুরু হওয়ার পর রংপুর নগরের বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে এই অভিযোগ করেন তিনি। মাঠ সুষ্ঠু নয় এমন অভিযোগ করে রিটা রহমান বলেন, ‘আমরা বারবার অনুরোধ করেছিলাম যে ভোটের মাঠ সুষ্ঠু রাখেন। নিরপেক্ষ আচরণ করেন। কিন্তু তারা ‘পক্ষপাতিত্ব’ করছেন। ভোটের মাঠ সবার জন্য সমান করতে নির্বাচন কমিশন ব্যর্থ।’ রিটা রহমান বলেন, গতকাল রাতে বিভিন্ন জায়গায় বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছে প্রশাসন। ভোটের বিভিন্ন সরঞ্জামাদি নিয়ে গেছে।

এ বিষয়ে রাতে মোবাইলে ও সকালে রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। ভোটার উপস্থিতি নিয়ে এ প্রার্থী বলেন, নির্বাচন ও ইভিএম নিয়ে মানুষ আশাহত। তাই এই নির্বাচনে জনসম্পৃক্ততা নেই। পরিবেশ সুষ্ঠু না হওয়ায় মানুষ ভোট দিতে আসছে না বলে অভিযোগ করেন তিনি। রিটা রহমানের সঙ্গে ছিলেন রংপুর জেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম, মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিজু প্রমুখ। এর আগে সকাল নয়টায় এরশাদের আসনে শূন্য হওয়া আসনটিতে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। চলবে বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত। সকাল থেকে এখন পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি খুব একটা চোখে পড়েনি। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটারদের উপস্থিতি বাড়তে পারে বলে আশা করছেন নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।