১৬, অক্টোবর, ২০১৯, বুধবার | | ১৬ সফর ১৪৪১

তিস্তার তীব্র ভাঙনে ঘরবাড়ি-ফসলি জমি বিলীন

প্রকাশিত: ৯:৫১ পূর্বাহ্ণ , অক্টোবর ৬, ২০১৯

তিস্তার তীব্র ভাঙনে ঘরবাড়ি-ফসলি জমি বিলীন
সিএনআই ডেস্ক: কয়েক দিনের ভাঙনে বিলীন হয়েছে কয়েকশ বসতভিটা, রাস্তাঘাটসহ ফসলি জমি। হুমকির মুখে রয়েছে স্কুল, মসজিদসহ অসংখ্য স্থাপনা।

লালমনিরহাট সদর উপজেলার তিস্তা সড়ক সেতু এলাকায় চর গোকুন্ডা গ্রামে দেখা দিয়েছে ভাঙন। গতিপথ পাল্টে জেগে ওঠা চরে তিস্তা নদী প্রবাহিত হওয়ায় দেখা দিয়েছে এই ভাঙন। বাঁধ না থাকায় বেড়েছে এর তীব্রতা। আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে নদীতীরের মানুষ। এদিকে, পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, বরাদ্দ না থাকায় ভাঙন রোধে কাজ করতে পারছে না তারা।

স্থানীয়দের অভিযোগ, তিস্তার সড়ক সেতুর পূর্ব পাশে অবৈধভাবে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের কারণে এই ভাঙন দেখা দিয়েছে। আর, এর কবলে পড়েছে ঘর-বাড়ি, ফসলি জমি, রাস্তাঘাটসহ বিভিন্ন স্থাপনা।

ঘরবাড়ি হারানো পরিবারগুলোর অনেকেই ঠাঁই নিয়েছেন অন্যের বসতভিটায়। আতঙ্কে বসতি সরাতে ব্যস্ত অনেকে। পাকা ধানের ক্ষেত নদীতে বিলীন হওয়ায় দিশেহারা অনেকেই।

একাধিকবার জানানো হলেও, ভাঙন রোধ আগাম কোনও পদক্ষেপ না নেয়ায় কর্তৃপক্ষের ওপর ক্ষোভ জানান গোকুন্ডার ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা স্বপন।

এদিকে, লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবু জাফর বলেছেন, ভাঙন প্রতিরোধে এখনো কোনও বরাদ্দের পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের চিঠি দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সরকারি সহায়তার পাশাপাশি ভাঙন ঠেকাতে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানিয়েছে ভুক্তভোগীরা।

সিএনআই


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।