১৬, অক্টোবর, ২০১৯, বুধবার | | ১৬ সফর ১৪৪১

এবার মামলার বাদীকে গুলি করার হুমকি দিলেন ওসি

প্রকাশিত: ৪:৩৬ অপরাহ্ণ , অক্টোবর ৬, ২০১৯

এবার মামলার বাদীকে গুলি করার হুমকি দিলেন ওসি

সিএনআই ডেস্ক: নীলফামারীর সৈয়দপুরে মামলার বাদীকে গুলি করার হুমকি দিয়েছেন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহজাহান পাশা। শুধু তা-ই নয়, বাদীর ৭০ বছর বয়সী বৃদ্ধা মায়ের গালে চড়-ধাপ্পড় মেরে তাকে লাঞ্ছিত করেন ওসি। সেই সঙ্গে তিনি মামলার বাদীর বাড়িতে ঢুকে বাদী ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের প্রতি চরম ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ এবং উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করে দুই আসামিকে পালিয়ে যেতে সুযোগ করে দেন।

গতকাল শনিবার রাতে শহরের গোলাহাটের ঘোড়াঘাট এলাকায় নিজ বাড়িতে সংবাদ সস্মেলনের ওই অভিযোগ করেন স্ত্রী হত্যাচেষ্টার মামলার বাদী সৈয়দপুর পৌর আওয়ামী লীগ নেতা ও পৌরসভার সাবেক প্যানেল মেয়র হিটলার চৌধুরী ভলু।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করে বলেন, গত ১২ সেপ্টেম্বর রাতে শহরের ঘোড়াঘাট এলাকার তাঁর নিজ বাড়িতে স্ত্রী সুরভী ইসলাম পপিকে (৩৫) গলা কেটে জবাই করে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়। একই এলাকার মো. মুন্নার ছেলে রাজা এবং মৃত সাগিরের ছেলে জীবন ওই ঘটনাটি ঘটায়। পরে খবর পেয়ে সৈয়দপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। হত্যাচেষ্টার শিকার গৃহবধূর স্বামী সৈয়দপুর পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক পৌর প্যানেল মেয়র মো. হিটলার চৌধুরী ভলু তাঁর আহত স্ত্রী সুরভী ইসলাম পপিকে (৩৫) নিয়ে যখন হাসপাতালে ছুটছিলেন, ঠিক সেই সময় সৈয়দপুর থানা পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় ডেকে এনে ৬/৭ ঘণ্টা কালক্ষেপণ করেন। এরপর তিনি বাদী হয়ে স্ত্রী হত্যাচেষ্টার মামলা দায়ের করতে চাইলে প্রথমে সৈয়দপুর থানা পুলিশ তাকে মামলার বাদী করতে অনীহা প্রকাশ করেন। পরবর্তীতে অনেক দেনদরবারের পর তিনি বাদী হয়ে তাঁর স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টাকারী রাজা ও জীবনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে সৈয়দপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

সংবাদ সম্মেলনে বাদী হিটলার চৌধুরী ভলু বলেন, মামলার পর থেকে আসামি গ্রেপ্তারে তেমন কোনো তৎপরতা দেখায়নি পুলিশ। তিনি কয়েক দফা থানার ওসির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে আসামি গ্রেপ্তারের বিষয়ে তাগাদা দেন। কিন্তু সৈয়দপুর থানার ওসি শাহজাহান পাশা বলেন আসামিরা পাশের দেশ ভারতে পালিয়ে গেছে। তাঁর এ কথায় আশ্বস্ত না হয়ে তিনি নিজেই আসামিদের বিষয়ে খোঁজখবর নেন। পরবর্তীতে বিভিন্ন মাধ্যমে দেশের মধ্যে তাদের অবস্থানের বিষয়ে নিশ্চিত হন। এরপর আসামিদের পরিবার ও স্বজনদের মাধ্যমে গত শনিবার সন্ধ্যায় তাদের সৈয়দপুরে নিয়ে আসা হয়। এরপর সংবাদকর্মীদের উপস্থিতিতে আসামিদের থানা পুলিশের হাতে হস্তান্তরের প্রস্তুতি চলছিল। ঠিক এ সময় সৈয়দপুর থানার ওসি পুলিশ সদস্যদের নিয়ে বাদী হিটলার চৌধুরী ভলুর বাড়িতে উপস্থিত হন। এ সময় মামলার বাদী ভলু সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে আসামিদের পুলিশের হাতে তুলে দেবেন বলে জানান ওসি শাহ্জাহান পাশাকে। এতে তিনি বাদীর ওপর চরম ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। পরবর্তীতে বাদীর বাড়িতে এক উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করা হয়। এ সময় হিটলার চৌধুরী ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে পুলিশ সদ্যস্যের তুমুল বাকবিতণ্ডা ও ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। এ সময় ওসি পাশা বাদী ভলুকে পিস্তল উঁচিয়ে গুলি করার হুমকি দেন। এ ছাড়াও বাদীর বৃদ্ধা মা ফাতেমা বেগম চৌধুরীর দুই গালে চড়-ধাপ্পড় মারেন। এতে ৭০ বছর বয়সী বৃদ্ধা মাটিতে লুটিয়ে পড়েন বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন তিনি।

হিটলার চৌধুরী আরো অভিযোগ করেন, থানার ওসি একটি পক্ষের হয়ে মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে তাকে নানাভাবে হয়রানির চেষ্টা করছেন।

সাত দিনের আলটিমেটাম দিয়ে তিনি তাঁর বাড়িতে ঢুকে তাকে ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ ও আসামিদের পালিয়ে যেতে সহযোগিতার জন্য ওসিকে অভিযুক্ত করে তাঁর উপযুক্ত শাস্তি দাবি করেন। একই সঙ্গে তিনি তাঁর স্ত্রীকে হত্যাচেষ্টার মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবি জানান। অন্যথায় এলাকাবাসীকে সঙ্গে নিয়ে দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারকারী ওসি শাহজাহান পাশার বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলার হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

সৈয়দপুর থানার ওসি মো. শাহজাহান পাশা বলেন, মামলার বাদী হিটলার চৌধুরী আসামিদের তাঁর বাড়িতে এনেছেন খবর পেয়ে আমি সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সেখানে যাই। এ সময় মামলার বাদী আসামিদের পুলিশের হাতে তুলে না দিয়ে উল্টো পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে অসদাচরণ করেন। পবরর্তীতে তিনি (ভলু) দুই আসামিসহ বাড়ি থেকে কৌশলে সটকে পড়েন। ফলে সেখান থেকে আসামিদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বাদীকে পিস্তল উঁচিয়ে গুলি করার হুমকি দেওয়ার প্রশ্নই উঠে না। ববং তারাই পুলিশ সদস্যদও হেনস্তা করেছেন।

প্রসঙ্গত, গত ১২ সেপ্টেম্বর রাতে শহরের ঘোড়াঘাট এলাকার বাড়িতে সৈয়দপুর পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক পৌর প্যানেল মেয়র হিটলার চৌধুরীর স্ত্রী সুরভী ইসলাম পপিকে (৩৫) গলা কেটে জবাই করে হত্যার চেষ্টা করা হয়। -কালের কন্ঠ


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।