১৬, অক্টোবর, ২০১৯, বুধবার | | ১৬ সফর ১৪৪১

পাইকারি দাম কমলেও এখনো খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম বেশি

প্রকাশিত: ৪:২৪ অপরাহ্ণ , অক্টোবর ৮, ২০১৯

পাইকারি দাম কমলেও এখনো খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম বেশি

অর্থনীতি ডেস্কঃ  পেঁয়াজের সরবরাহ বেড়েছে, এতে করে দাম কমতে শুরু করেছে। কিন্তু পাইকারি বাজারে দাম কমলেও খুচরাবাজারে এখনো পেঁয়াজ বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে।

সোমবার (৭ অক্টোবর) রাজধানীর রামপুরা, শান্তিনগর, নিউমার্কেট, মোহাম্মপুর কৃষি মার্কেট সহ বিভিন্ন বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, খুচরায় আমদানিকৃত পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৭০-৭৫ টাকা ও দেশি পেঁয়াজ ৮০-৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

তবে পেঁয়াজের বড় পাইকারিবাজার শ্যামবাজারে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৬০-৬৫ টাকা ও আমদানিকৃত ভারতীয় পেঁয়াজ ৫০-৫৫ টাকা, মিয়ানমারের পেঁয়াজ ৩০-৫৫ টাকা এবং মিশরের পেঁয়াজ ৪৮-৫০ টাকা কেজি দোমে বিক্রি হচ্ছে। সেই হিসেবে পাইকারিবাজারের তুলনায় খুচরাবাজারে পেঁয়াজের দাম বেশি।

এদিকে, সারা দেশে পেঁয়াজের অবৈধ মজুত ও কারসাজি করে মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে বাজারে। দেশি পেঁয়াজের মজুত যাদের কাছে ছিল তারা ছেড়ে দিচ্ছে। ভারত থেকে রপ্তানি বন্ধের আগের এলসি করা পেঁয়াজও দেশে আসছে। এছাড়া মিশর ও মিয়ানমার থেকে এখনো পেঁয়াজের আমদানি করা হচ্ছে।

রাজধানীর আড়তগুলোতে পেঁয়াজের ব্যাপক সরবরাহ দেখা যায়। সেই হিসেবে তেমন ক্রেতা আসছে না।

এ বিষয়ে পেঁয়াজ আমদানিকারক ও শ্যামবাজারের আড়তদার নারায়ণ চন্দ্র রায় জানান, বর্তমানে বাজারে পেঁয়াজের কোনো সঙ্কট নেই। হঠাৎ করে ভারত পেঁয়াজের রপ্তানি বন্ধ করায় সাময়িক কিছুটা সমস্যা হয়েছিল। এখন সেই সমস্যা কেটে গিয়েছে। মিশর ও মিয়ানমার থেকে এখন প্রচুর পরিমাণ পেঁয়াজ আসছে দেশে। এছাড়াও দেশি পেঁয়াজের বাজারে সরবরাহ পর্যাপ্ত। কিন্তু বাজারে কিছুদিন আগে পেঁয়াজের যেমন চাহিদা ছিল বর্তমানে তা নেই বলেও জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, এখন পাইকারিবাজার গুলোতে পেঁয়াজের যে দাম তা থেকে খুব বেশি কমার সম্ভাবনা নেই। তবে পেঁয়াজের দাম মাসখানেকের মধ্যে আরও কমবে।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।