৯, ডিসেম্বর, ২০১৯, সোমবার | | ১১ রবিউস সানি ১৪৪১

সফল লিডার হওয়ার উপায়

প্রকাশিত: ১০:৫৭ অপরাহ্ণ , অক্টোবর ১১, ২০১৯

সফল লিডার হওয়ার উপায়

সিএনআই ডেস্ক: আপনার ক্যারিয়ারে এমন একটি সময় আসবে, যখন আপনার লিডারশিপ কোয়ালিটি বা নেতৃত্বের দক্ষতা পরীক্ষা করা হবে। নেতৃত্বের দক্ষতাগুলি খুব গুরুত্বপূর্ণ গুণ হিসাবে বিবেচিত হয় কেননা এটি আপনাকে ক্যারিয়ারের শীর্ষে উঠতে সহায়তা করে। প্রযুক্তিগত জ্ঞান এবং নেতৃত্বের গুণাবলির সমন্বয়ে আপনি সহজেই পদোন্নতি পেতে পারেন এবং আপনার কোম্পানির কাছে গুরুত্বপূর্ণ রিসোর্স হিসাবে বিবেচিত হতে পারেন।

এখানে সফল লিডার হওয়ার ১০টি উপায় উল্লেখ করা হলো:-

১।লক্ষ্য এর প্রতি ফোকাস করাঃ একজন লিডার এর অন্যতম কাজ হচ্ছে তার লক্ষ্য সম্পর্কে সুস্পস্ট ধারনা রাখা এবং এটি নিশ্চিত করা যে তার টিমের সদস্যরা এই লক্ষ্য পূরনে তার দিকনির্দেশনা স্বতঃফূর্ত ভাবে অনুসরণ করছে ।এছাড়া টিমকে একটি কাজ দিয়ে কিভাবে তাদের কাছ থেকে সর্বাধিক আউটপুট অর্জন করা যায় সেই কৌশল ও একজন লিডার কে জানতে হবে। নেতৃত্বের এই ক্ষমতাটি দলের সদস্যদের সবাইকে একত্রিত করতে পারে এবং চূড়ান্ত লক্ষ্যের জন্য তাদের সেরাটি দিতে তাদের একীভূত করতে পারে।

২।কমিউনিকেশনে দক্ষতা অর্জনঃ যোগাযোগ সমস্ত সম্পর্কের ক্ষেত্রে বিশেষত একটি দলনেতা এবং তার দলের সদস্যদের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।একজন লিডার হিসাবে আপনার এমন একটি বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশ তৈরি করা উচিত যেখানে টিমের সকল সদস্য তাদের আইডিয়া, পরামর্শ, সমালোচনা এবং উদ্বেগগুলি সহজে শেয়ার করতে পারে। একজন লিডার যিনি কমিউনিকেশনে দক্ষ তিনি খুব সহজে দলের সদস্যদের আস্থা অর্জন করতে পারেন।

৩।একজন ভাল শ্রোতা হতে হবে আপনি যদি একজন ভাল লিডার হতে চান তবে আপনাকে একজন ভাল শ্রোতাও হতে হবে। কোন প্রজেক্টের বিষয়ে টিমের সদস্যদের মন্তব্য জানার ব্যাপারে লিসনিং স্কিল অনেক সহায়তা করে এবং সঠিক মন্তব্য ও প্রতিক্রিয়াগুলি সমস্যার সমাধান কল্পে এবং লক্ষ্য অর্জনের ব্যাপারে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।নিরবিচ্ছিন্নভাবে মনোযোগ সহকারে সদস্যদের মন্তব্য শুনতে হবে, পাশাপাশি বিচক্ষনতার সাথে তাদের কাছে আপনার নিজের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করুন।মনে রাখবেন মৌখিক দক্ষতায় ভাল হওয়া ছাড়াও আপনার দলের সাথে কথা বলার সময় আপনার বডি ল্যংগুয়েজ, আই কন্টাক্ট ইত্যাদি বিষয়ে সচেতন হওয়া উচিত।

৪। বিরোধ নিস্পত্তিতে দক্ষতা অর্জনঃ সহকর্মীদের বোঝার এবং সংঘাতগুলি ইতিবাচকভাবে সমাধান করা নেতৃত্বের দক্ষতার একটি অংশ। যখন কোন সদস্য তার সেরাটা দেয় না এবং দলে নেতিবাচকতা নিয়ে আসে, তখন লিডার কে ব্যক্তিগতভাবে সেই সদস্যের সাথে খোলামেলা আলোচনা করতে হবে।লিডার কে মনে সাহস রাখতে হবে এবং কোন অবস্থাতেই সততার সাথে কথা বলা থেকে বিরত থাকা যাবে না।সহকর্মীর সমস্যার কথা না জেনে, বিরোধ নিস্পত্তির স্বার্থে একতরফাভাবে তাকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেয়া কোন ভাল লিডারের বৈশিষ্ট্য নয়।

৫। পেশাদারিত্ব বজায় রাখাঃ সহকর্মীদের এবং গ্রাহকদের সম্মান ও আস্থা অর্জনের জন্য লিডারকে পেশাদারিত্ব, সততা এবং কাজের স্বচ্ছতা বজায় রাখা জরূরী। সহকর্মীদের কাছ থেকে তাদের সামর্থ্যের সেরা পারফরম্যান্সটুকু আদায় করার জন্য এবং তাদেরকে মোটিভেট রাখার জন্য লিডারকে চারিত্রিক দৃড়তা ও বিশ্বাসযোগ্যতা বজায় রাখতে হয়।

৬।সহকর্মীদের সাথে আবেগ শেয়ার করাঃ আবেগ ব্যাপারটি বেশ সংক্রামক, লিডার যদি আবেগ প্রদর্শন করে তবে এটি সহকর্মীদের মাঝেও ছড়িয়ে পড়ে। এটি কঠিন পরিস্থিতির উপড় থেকে চাপ কমায় এবং এটি সহকর্মীদেরকে স্বাচ্ছন্দ্যের সাথে কঠিন প্রতিবন্ধকতা মোকাবেলা করতে সহায়তা করে। ইতিবাচক শক্তি এবং উত্সাহটি লিডারের মাধ্যমেই দলের মধ্যে প্রবাহিত হওয়া উচিত।

৭।সহকর্মীদের মোটিভেট করাঃ তিনিই প্রকৃত লিডার যিনি কিনা তার সহকর্মীদেরকে তাদের সামর্থ্যের সর্বোচ্চ পর্যায়ের পারফর্ম করার জন্য প্রভাবিত করার ক্ষমতা রাখেন। লিডারের ইতিবাচক প্রেরণা খুবই গুরুত্বপূর্ণ, বিশেষত যখন সহকর্মীরা কোনও কাজের সময় উদ্ভূত সমস্যাগুলির মধ্যে পড়ে হতাশ হন কিংবা মনোবল হারান।এধরনের পরিস্থিতিতে একজন লিডারের উচিত তার নিজের জীবনের অভিজ্ঞতাগুলু শেয়ার করা যা কিনা সহকর্মীদের সামনের দিকে এগিয়ে যেতে উতসাহ যোগাবে।

৮।নতুন আইডিয়াকে উৎসাহিত করাঃ সহকর্মীদের নতুন নতুন আইডিয়াকে স্বাগত জানাতে হবে এবং তাদের মধ্যে আউ্ট অব দ্যা বক্স চিন্তা ভাবনার সংস্কৃতি গড়ে তুলতে হবে। এই জাতীয় দৃষ্টিভঙ্গি টিমের দীর্ঘমেয়াদী সাফল্য অর্জনে সহায়তা করবে এবং সহকর্মীদের মধ্যে লিডারের গ্রহণযোগ্যতাকে আরো জোড়দার করবে।

৯। সহকর্মীদের সম্মান করতে হবেঃ তিনিই সত্যিকারের লিডার যিনি কিনা তার সহকর্মীদের প্রতি সৎ এবং শ্রদ্ধাশীল। একজন লিডারকে নিয়মিতভাবে সকল সদস্যের কাছ থেকে শিখতে হবে এবং অন্যদেরকেও এটি করতে উত্সাহিত করতে হবে। এই জাতীয় নেতৃত্বের গুণাবলী সদস্যদেরকে আরও বেশি সাফল্য অর্জনে অনুপ্রাণিত করে।

১০।যোগ্য সহকর্মীদের পুরস্কৃত করতে হবেঃ যখন কোন সহকর্মীর কাজের প্রশংসা করা হয় তখন তিনি স্মমানিত বোধ করেন এবং আরও ভালভাবে কাজ করতে অনুপ্রাণিত হোন। এটি লিডারের দায়িত্ব যোগ্য সহকর্মীদেরকে পুরস্কৃত করার মাধ্যমে তাদের কঠোর পরিশ্রমকে স্বীকৃতি দেওয়া ।এটি অন্যান্য সদস্যদের আরও উত্পাদনশীল হতে উত্সাহিত করবে।

-লেখক: এস এম আহবাবুর রহমান, এইচআর প্রফেশনাল এন্ড ক্যারিয়ার কোচ।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।