১৫, নভেম্বর, ২০১৯, শুক্রবার | | ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

মিশর, তুরস্ক, ইরান থেকে পেঁয়াজ আমদানি করবে ভারত

প্রকাশিত: ৫:২৪ অপরাহ্ণ , নভেম্বর ৬, ২০১৯

মিশর, তুরস্ক, ইরান থেকে পেঁয়াজ আমদানি করবে ভারত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: দেশে পেঁয়াজের জোগান বাড়াতে অন্যান্য দেশ থেকে দ্রুত পেঁয়াজের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত।

এনডিটিভি বাংলা জানিয়েছে, মঙ্গলবার আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটির বৈঠকে পেঁয়াজের দাম ও জোগান পর্যালোচনা করার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের উপভোক্তা বিষয়ক মন্ত্রক (কনজ্যুমার অ্যাফেয়ার মিনিস্ট্রি)।

কনজ্যুমার অ্যাফেয়ার মিনিস্ট্রি জানিয়েছে, ওই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে যে, কেন্দ্রীয় সরকার পেঁয়াজ আমদানির ক্ষেত্রে সহজতর ভূমিকা পালন করবে। এই ক্ষেত্রে, আমদানির সুবিধার্থে ফাইটোস্যানিটারি এবং ফিউমিগেশনের বিষয়ে উদারনীতিই নেওয়া হবে। আফগানিস্তান, মিশর, তুরস্ক এবং ইরানকে ভারতে পেঁয়াজ সরবরাহ সহজতর করার জন্য বলা হয়েছে।  আশা করা হচ্ছে এর ফলে আপাতত ভারতে পেঁয়াজ আমদানি বাড়বে, এবং এতে দাম কমবে পেঁয়াজের।

পেঁয়াজ আমদানির এই সিদ্ধান্তটি প্রমাণ করেই দিচ্ছে ভারতে পেঁয়াজের জোগান অপ্রতুল। কেন্দ্র সরকার মহারাষ্ট্র এবং অন্যান্য রাজ্য থেকে সরবরাহ বাড়াতে চাইছে।  উৎসবের মৌসুমে পেঁয়াজের মতো প্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম পর্যালোচনা করেছে সরকার। আসন্ন নির্বাচনের কারণে দিল্লির রাজনৈতিক পটভূমিতে পেঁয়াজের দাম ভোটবাক্সে বেশ ভালোই চাপ ফেলছে।

ন্যাশনাল এগ্রিকালচারাল কো-অপারেটিভ মার্কেটিং ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়াকে (এনএএফইডি) দিল্লি সরকার, মাদার ডেয়ারি এবং সফলকে খুচরা বিক্রয়ের জন্য সর্বাধিক সম্ভাব্য পরিমাণ পেঁয়াজ সরবরাহ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  এনএএফইডি’র অ্যাডিশনাল এমডি’র নেতৃত্বে একটি দল নাসিক গিয়ে সেখানকার পরিস্থিতির পর্যালোচনা করবে এবং মহারাষ্ট্র থেকে দিল্লি ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চলগুলিতে পেঁয়াজের যোগান বাড়ানোর কাজ করবে।

পেঁয়াজের সরবরাহের জোগাড় করতে এবং দিল্লি-এনসিআরসহ সমস্ত উপভোক্তা অঞ্চলে পেঁয়াজের সরবরাহ বাড়াতে বুধ এবং বৃহস্পতিবার দু’টি আন্তঃমন্ত্রণালয় দল পাঠানো হবে কর্ণাটক ও রাজস্থানে।  রাজস্থান সরকার ইতিমধ্যেই পেঁয়াজ চাষের মাধ্যমে সরবরাহ দ্রুত করার আশ্বাস দিয়েছে।  ইতিমধ্যেই কিছু কিছু অঞ্চলে পেঁয়াজের চাষ শুরুও হয়েছে।

দিল্লি সরকারকে কর্ণাটক ও রাজস্থান যাওয়ার জন্য আন্তঃমন্ত্রণালয় দলে কর্মকর্তাদের নিয়োগের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।  এই দল মূলত ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক করবে এবং এই সমস্ত অঞ্চলে জোগান বাড়াতে পরামর্শও দেবে।  মুনাফা এবং পৃথক দাম বাড়ানো বিষয়ে ব্যবসায়ীদের সতর্কও করা হবে বলে জানিয়েছে ওই মন্ত্রণালয়।


সিএনআই’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।