বৃহস্পতিবার, ২৮শে মে, ২০২০ ইং

র‍্যাব কার্যালয়ে নোবেল বললেন,‘আমি লজ্জিত ও ক্ষমাপ্রার্থী’

সিএনআই ডেস্ক: ‘আমি মনে হয় বেশি বেশি করে ফেলেছি। মানুষ আমার ওপরে ক্ষিপ্ত অবস্থায় আছেন। সে জন্য আমি আন্তরিক ক্ষমাপ্রার্থী এবং দুঃখিত। আমার কাউকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করার কোনো ইচ্ছে ছিল না। যা করেছি সম্পূর্ণরূপে এগুলো আমি আমার গানের প্রচারণার জন্য করেছিলাম। গানটির নাম ‘তামাশা’। সবাইকে ঈদ মোবারক।’ এক ভিডিওবার্তায় কথাগুলো বলেছেন সমালোচিত সংগীতশিল্পী মাঈনুল আহসান নোবেল। সম্প্রতি দেশের লিজেন্ড শিল্পীদের দিয়ে অপমানজনক মন্তব্য করে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। যে কারণে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-২ (র‌্যাব)-এর কার্যালয়ে ডাকা হয় তাকে। সেখান থেকে ফিরে নিজের কর্মকাণ্ডের জন্য ক্ষমা চেয়ে ফেসবুকে ভিডিওবার্তা দেন এই গায়ক। নোবেল জানান, রোববার (২৪ মে) সন্ধ্যায় নোবেলকে আগারগাঁও অবস্থিত র‍্যাব–২–এর কার্যালয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনির জামান ডেকে নেন। সেখানে যাওয়া পর নোবেল তার ভুল বুঝতে পারেন। এরপর তিনি ভুল স্বীকার করে ভিডিওবার্তা দেন এবং সমালোচিত পোস্ট ফেসবুক থেকে সরিয়ে নেন। গত ১৯ মে নোবেল তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে লেখেন, ‘দু-বছর আগে জন্ম নিয়েছি আপনাদের ভালবাসা নিয়ে। দু-বছরে ফ্লপ-হিট গানের সংখ্যা দুই। তোমার মনের ভেতর - অনুপম রায় (National Award winner)। আগুনপাখি - শান্তনু মৈত্র (National Award winner)। তোমাদের লিজেন্ড গত দশ বছর ধরে কয়টা ফ্লপ অথবা হিট রিলিজ করেছে কমেন্টস সেকশনে জানাও। থুক্কু বাংলাদেশে তো গত ১০ বছরে ভালো করে কেউ মিউজিকই করেনি। দাঁড়াও তোমার লিজেন্ডদের না হয় আমিই শিখাবো, কিভাবে ২০২০ সালে মিউজিক করতে হয়।’ নোবেলের এমন স্ট্যাটাসের পর তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। দেশের প্রখ্যাত অনেক শিল্পী বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এর মধ্যেই ইউটিউবার তাহসিনেশনের সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিবাদে জড়িয়ে পড়েন তিনি। নোবেলকে এ ধরনের বিভ্রান্তিমূলক স্ট্যাটাস থেকে বিরতি থাকতে গত সাইবার ক্রাইম (ডিএমপি) বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম তার ফেসবুকে সতর্কতামূলক একটি স্ট্যাটাস দেন। পরে দুঃখ প্রকাশ করে ওই স্ট্যাটাস নোবেল তার নিজের ফেসবুক পেজে শেয়ারও দেন।