২৯শে মার্চ, ২০২০ ইং, রবিবার
৫ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

করোনাভাইরাস: নন্দীগ্রামে কর্মহীন হয়ে পড়েছে শ্রমজীবী মানুষ

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি:  বগুড়ার নন্দীগ্রামে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে কর্মহীন হয়ে পড়েছে শ্রমিক ও দিনমজুরা। গত কয়েক দিন হলো উপজেলার বেশিরভাগ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ। বন্ধ রয়েছে গণপরিবহন। তাই বাসস্ট্যান্ডসহ ফাঁকা এখন রাস্তাঘাট। রাস্তায় দু-একটি রিকশা, অটোরিকশা দেখা গেলেও যাত্রী সংকটে ভাড়া পাচ্ছে না চালকরা। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে কাঁচাবাজার, ওষুধের দোকান ও নিত্যপণ্যের কিছু দোকান খোলা থাকলেও ক্রতা না থাকায় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার পর দোকানগুলো বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থায় বিপাকে পড়েছে উপজেলার অনেক শ্রমজীবী মানুষ। জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ ও মাইকিং করে দোকানপাট, যান চলাচল, হাট-বাজার বন্ধ রাখাসহ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশনা দিয়েছে। আর এ নির্দেশনা কার্যকর করতে মাঠে কাজ করছে পুলিশ প্রশাসন। অটোরিকশাচালক জলিল মিয়া জানান, গাড়ি চালিয়ে যে টাকা পাই তা দিয়ে সংসারের খরচ চলে। করোনার কারনে যাত্রী নাই কামাইও নাই। জানিনা কতদিন এ ভাবে চলবে আর কি খাবো। টেইলার্সের কারিগর রাধানাথ বলেন, আমরা দিন হাজিরা কাজ করি। এ অবস্থা চলতে থাকলে বউ বাচ্চা নিয়ে অনাহারে মরতে হবে। এদিকে করোনা ভাইরাস সতর্কতায় দুস্থ ও কর্মহীন শ্রমজীবী মানুষের সহায়তায় সরকার অর্থ বরাদ্দ দিয়েছে। এতে প্রতিটি উপজেলায় দুস্থ ও কর্মহীন শ্রমজীবী মানুষের তালিকা করে চাল, আলু, ডাল, লবন ও সাবান কিনে দেয়ার নির্দেশনা রয়েছে বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আখতার জানান, নন্দীগ্রামে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে আমরা উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। সরকারি বরাদ্দকৃত চাল, আলু ও ডালসহ সকল দ্রব্যদি দেয়ার জন্য দুস্থদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে।